Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

জন্মদিনের শুভেচ্ছায় ভাসছেন তরুণদের অহংকার জয়


আগামী নিউজ | নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: জুলাই ২৭, ২০২০, ১০:২৪ এএম
জন্মদিনের শুভেচ্ছায় ভাসছেন তরুণদের অহংকার জয়

ছবি সংগৃহীত

ঢাকা: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্র এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫০তম জন্মদিন সোমবার (২৭ জুলাই)। 

অগ্নিঝরা একাত্তরের এই দিনে খ্যাতনামা পরমাণু বিজ্ঞানী মরহুম এমএ ওয়াজেদ মিয়া এবং প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রেী শেখ হাসিনার ঘরে জন্ম নেন সজীব ওয়াজেদ। মুক্তিযুদ্ধে জয় ছিনিয়ে আনার প্রত্যয়ে নানা শেখ মুজিবুর রহমান প্রিয় এই নাতির নাম রাখেন ‘জয়’।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা হিসেবে বাংলাদেশের সমান বয়সী জয় ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের নেপথ্য কারিগর। জাতি যেমন এ বছর ৫০তম মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করেছে, ঠিক তেমনি এ বছর জয়েরও ৫০তম জন্মদিন।

এদিকে, সোমবার প্রথম প্রহর থেকেই আওয়ামী লীগ এবং এর সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা ফেইসবুকে সজীব ওয়াজেদ জয়কে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন।

বিদ্যুৎ,জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু তার ফেইসবুক পাতায় সজীব ওয়াজেদ জয়ের সঙ্গে ছবি দিয়ে তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। 

তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক তার ফেইসবুক পাতায় ‘ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা’ জয়ের ছবি দিয়ে একটি ভিডিও পোস্ট দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রীর উপ প্রেসসচিব আশরাফুল আলম খোকন তার ফেইসবুক পাতায় একটি ভিডিও পোস্ট করে লিখেছেন-‘….শুভ জন্মদিন সমৃদ্ধ আগামীর প্রতিচ্ছবি সজীব ওয়াজেদ জয়।’

শুধু কেন্দ্র নয়, কেন্দ্রের বাইরেও আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা তাদের ফেইসবুক পাতায় সজীব ওয়াজেদ জয়ের ছবি পোস্ট করে তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। 


১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর মায়ের সঙ্গে বাবার কর্মস্থল জার্মানি হয়ে ভারতে যান সজীব ওয়াজেদ জয়। তার শৈশব-কৈশোর কাটে ভারতে। নৈনিতালের সেন্ট জোসেফ কলেজে লেখাপড়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস অ্যাট আর্লিংটন থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে স্নাতক ডিগ্রি নেন। পরে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লোক প্রশাসনে স্নাতকোত্তর অর্জন করেন তিনি। ২০০২ সালের ২৬ অক্টোবর ক্রিস্টিন ওয়াজেদকে বিয়ে করেন। তাদের একমাত্র সন্তানের নাম সোফিয়া ওয়াজেদ।

শুরু থেকেই আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যক্রমে প্রত্যক্ষভাবে যুক্ত নন জয়। তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) উপদেষ্টা তিনি। দলে সক্রিয় না হলেও অবশ্য ২০১০ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি জয় রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্যপদ গ্রহণ করেন সজীব ওয়াজেদ। এর মধ্য দিয়ে তিনি দলীয় রাজনীতিতে নাম লেখান। নবম ও দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ নেন তিনি। নির্বাচনি প্রচারণায় সাধারণ মানুষের কাছে ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নের কথা তুলে ধরেন। কেবল নির্বাচনি প্রচারণাই অবশ্য নয়, সরকার ও দলের তথ্যপ্রযুক্তি, রাজনীতি, সামাজিক, অর্থনৈতিক, শিক্ষা-বিষয়ক বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে তরুণ উদ্যোক্তা তৈরি করার লক্ষ্যে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন।

আগামীনিউজ/এমআর 

Dr. Neem