Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

আইরিন খানকে আর্টিকেল নাইনটিনের অভিনন্দন


আগামী নিউজ | নিজস্ব প্রতিবেদক ‌ প্রকাশিত: জুলাই ২০, ২০২০, ১২:৩০ পিএম
আইরিন খানকে আর্টিকেল নাইনটিনের অভিনন্দন

সংগৃহীত ছবি

ঢাকা: যুক্তরাজ্য ভিত্তিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা আর্টিকেল নাইনটিন, মতপ্রকাশের অধিকারের প্রচার ও সুরক্ষার জন্য জাতিসংঘের স্পেশাল রেপোটিয়ার হিসাবে নিয়োগ পাওয়ায় মানবাধিকারকর্মী আইরিন খানকে আন্তরিকভাবে অভিনন্দন জানিয়েছে।

সোমবার (২০ জুলাই) সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে আর্টিকেল নাইনটিন-এর বাংলাদেশ ও দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক  ফারুখ ফয়সল বলেন, আর্টিকেল নাইনটিন-এর পক্ষ থেকে আমি মতপ্রকাশের অধিকারের প্রচার ও সুরক্ষার জন্য জাতিসংঘের স্পেশাল রেপোটিয়ারের দায়িত্ব পাওয়ায় আইরিন খানকে শুভেচ্ছা জানাই। আর্টিকেল নাইনটিন প্রত্যাশা করে, তিনি অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের সেক্রেটারি জেনারেল থাকার সময়ে এবং তার পূর্ব ও পরবর্তী সময়ে যেমন মানবাধিকারের ক্ষেত্রে অবদান রাখতে পেরেছিলেন, ঠিক তেমনি বাংলাদেশ ও বিশ্বব্যাপী মতপ্রকাশের স্বাধীনতা এবং তথ্যের অধিকার রক্ষায় অবদান রাখত সক্ষম হবেন।

ফারুখ ফয়সল বলেন, আইরিন খান এমন একটা মুহূর্তে দায়িত্ব নিতে চলেছেন যখন সারা বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন দেশের সরকার কোভিড -১৯ মহামারি মোকাবেলার অজুহাতে ইন্টারনেট শাটডাউন, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিয়ন্ত্রণ এবং মতপ্রকাশের স্বাধীনতাকে ক্ষুণ্ণ করছে। ভুয়া খবর ও গুজবকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে অনেক দেশের সরকার তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করছে। মানবাধিকার কর্মী হিসাবে তার দীর্ঘ সময়ের অভিজ্ঞতা মতপ্রকাশের স্বাধীনতা এবং তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করণে নাগরিক সমাজ, সরকার ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থাসহ সবাইকে নিয়ে কাজ করার পথ সুগম করবে।

উল্লেখ্য যে, আইরিন খান একজন আইনজীবী এবং অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের প্রাক্তন সেক্রেটারি জেনারেল, তিনি ২০২০ সালের ১ লা আগস্ট থেকে ইউএন স্পেশাল রেপোটিয়ার হিসাবে তার তিন বছরের মেয়াদ শুরু করবেন। তিনি একই  দায়িত্ব পালন করা ডেভিড কেয়ের স্থলাভিষিক্ত হবেন, যার ছয় বছরের মেয়াদ ২০২০ সালের ৩১ শে জুলাই শেষ হবে।  জাতিসংঘ ২৭ বছর আগে মতপ্রকাশের স্বাধীনতায় রক্ষায় স্পেশাল রেপোটিয়ার নিয়োগ শুরু করার পর থেকে আইরিন খান  এই ম্যান্ডেট প্রাপ্ত প্রথম নারী। অ্যামনেস্টি ই্নটারন্যাশনাল ছাড়াও আইরিন  খান আইনের শাসনের প্রসারে কাজ করা আন্তঃসরকারি সংস্থা ‘ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট ল অর্গানাইজেশন’ (আইডিএলও) এর মহাপরিচালক ছিলেন। তিনি ২০ বছর ধরে ‘জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার’ (ইউএনএইচসিআর) এর সাথেও কাজ করেছেন।

‘আর্টিকেল নাইনটিন’ প্রত্যাশা করে,  তিনি বাকস্বাধীনতার অধিকার, সেন্সরশিপ, ইন্টারনেট শাটডাউন, সাংবাদিক বা মতপ্রকাশের অধিকার চর্চাকারীদের উপর অত্যাচার ও নিপীড়ন এবং তথ্যের অবাধ প্রবাহের লঙ্ঘন মোকাবেলায় সাফল্য পাবেন। আমরা মতপ্রকাশের স্বাধীনতা এবং  তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করণে আইরিন খানের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার প্রত্যাশায় রয়েছি, এবং তার ভবিষ্যৎ সাফল্য কামনা করছি।

আর্টিকেল নাইনটিন যুক্তরাজ্যভিত্তিক একটি আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা, যেটি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কাজ করছে। এটি ১৯৮৭ সালে যুক্তরাজ্যে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং সংস্থাটি মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও মুক্ত চিন্তা নিশ্চিত করণের ক্ষেত্রে কাজ করে। সংস্থাটি ২০০৮ সাল থেকে বাংলাদেশে কাজ করে আসছে।

আগামীনিউজ/এসএআই/এমআর

Dr. Neem