Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

বন্ধ হচ্ছে না ইন্টারনেট ও ডিস


আগামী নিউজ | ডেস্ক রিপোর্ট প্রকাশিত: অক্টোবর ১৭, ২০২০, ১০:১৪ পিএম
বন্ধ হচ্ছে না ইন্টারনেট ও ডিস

ফাইল ছবি

ঢাকাঃ ইন্টারনেট ও ডিস ধর্মঘট স্থগিতের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। বিকল্প ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত ইন্টারনেট ও ডিসের ঝুলন্ত তার কাটা হবে না আশ্বাস পাওয়ার পর দিনে তিন ঘণ্টা ইন্টারনেট বন্ধের কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছে।

ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) এবং ক্যাবল অপারেটর অব বাংলাদেশ (কোয়াব) শনিবার (১৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় এক জুম মিটিংয়ে এই ঘোষণা দিয়েছে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী এবং আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর অনুরোধ এবং দক্ষিণ সিটির মেয়রের সাথে বৈঠকের আয়োজনের পর ইন্টারনেট ও ডিস ধর্মঘট স্থগিত করা হয়।

আইএসপিএবি সভাপতি আমিনুল হাকিম এবং মহাসচিব ইমদাদুল হক, কোয়াবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এসএম আনোয়ার পারভেজ এই ঘোষণা দেন। তারা বলেন, আগামীকাল থেকে আমাদের প্রতীকী ধর্মঘট স্থগিত করছি।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব মো. আফজাল হোসেন ছাড়াও কোয়াব এবং আইএসপিএবি নেতৃবৃন্দ জুম মিটিংয়ে যুক্ত ছিলেন।

এমদাদুল হক জানান, অচলাবস্থা কাটাতে ঢাকা উত্তর সিটি মেয়র আতিকুল ইসলামের সঙ্গে বৈঠকে সমঝোতা হয়েছে। আইএসপিএবি ঝুলে থাকা ইন্টারনেট তার সরিয়ে নেয়ার কাজ শুরুও হয়েছে।

মোস্তফা জব্বার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবকে জানানো হয়েছে। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে সার্বিক বিষয় তুলে ধরবেন। আশা করি আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে দ্রুত পদক্ষেপ পাব। আপনারা ধর্মঘট প্রত্যাহার করেন।

ধর্মঘট প্রত্যাহারের অনুরোধ করে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আশা করি আমরা আগামী সাত দিনের মধ্যে একটা যোক্তিক সমাধানে আসব।

টেলিযোগাযোগ সচিব বলেন, সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে আপাতত আর ক্যাবল কাটা হবে না। এ নিয়ে রোববার দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়রের সাথে রোববার সকালে কোয়াব এবং আইএসপিএবি নেতৃবৃন্দের বৈঠক রয়েছে বলে জানানো হয়।

উল্লেখ্য, বিকল্প ব্যবস্থা না করে সড়কের পাশের ঝুলন্ত তার কাটার প্রতিবাদে রোববার (১৮ অক্টোবর) থেকে প্রতিদিন সকাল ১০টা-১টা প্রতীকী ধর্মঘটের ডাক দেয় দুই সংগঠন। আইএসপিএবি সভাপতির দাবি, এতে প্রায় ২০ কোটি টাকার তার কাটা হয়েছে।

গত আগস্ট থেকে দুই সিটি করপোরেশন এলাকায় তার কাটা শুরু হয়। ইতোমধ্যে উত্তর সিটি করপোরেশন তার কাটা বন্ধ করলেও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে তার কাটা অব্যাহত ছিল।