Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

সুন্দরগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে নৌকার বৈঠা ধরলেন যে ১৩ জন


আগামী নিউজ | সুদীপ্ত শামীম, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি প্রকাশিত: অক্টোবর ২২, ২০২১, ০৬:৫৮ পিএম
সুন্দরগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে নৌকার বৈঠা ধরলেন যে ১৩ জন

ছবিঃ সংগৃহীত

গাইবান্ধাঃ তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ১৩ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে যারা নৌকা প্রতিকে লড়বেন তাঁদের নাম চূড়ান্ত করা হয়েছে। স্থানীয় সরকার নির্বাচনে (ইউপি) চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী নির্বাচিত করার লক্ষে গঠিত মনোনয়ন বোর্ডে এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থিত ছিলেন। 

শুক্রবার বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক (ভারপ্রাপ্ত) মিসেস আফরুজা বারী বলেন, ‘সরকারি বাসভবন গণভবনে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত মনোনয়ন বোর্ডের সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে। এ খবর নির্বাচনী এলাকায় জানা জানি হওয়ার পর থেকে কর্মী ও সমর্থকেরা আনন্দ উল্লাসে মেতে উঠেছে।’  

মনোনীত প্রার্থীরা হলেন ১নং বামনডাঙ্গা ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শমেস উদ্দিন বাবু, ২নং সোনারায় ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্রী রনজিৎ কুমার সরকার, ৩নং তারাপুর ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য সাইফুল ইসলাম, ৪নং বেলকা ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজি, ৫নং দহবন্দ ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক রেজাউল আলম সরকার, ৬নং সর্বানন্দ ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি চাঁদ মিঞা, ৭নং রামজীবন ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাদেকুল ইসলাম সরকার, ৮নং ধোপাডাঙ্গা ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান এ্যাডঃ মোখলেছুর রহমান রাজু, ৯নং ছাপড়হাটী ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান কনক কুমার গোশ্বামী, ১০নং শান্তিরাম ইউনিয়নে আওয়ামী লীগনেতা বিপ্লব খন্দকার, ১২নং কঞ্চিবাড়ী ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জয়নাল আবেদীন, ১৩নং শ্রীপুর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম ও ১৫নং কাপাসিয়া ইউনিয়নে সাবেক চেয়ারম্যান মো. মনজু মিয়া। তারা সবাই আশাবাদী নৌকা প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হবেন। তবে কোনো কোনো ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের একাধিক তথা বিদ্রোহী প্রার্থী থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

বেলকা ইউনিয়নের মনোনীত প্রার্থী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান মজি বলেন, ‘২০১৬ সালের নির্বাচনেও আমি নৌকা নিয়ে নির্বাচন করেছিলাম। সামান্য কিছু ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হতে পারিনি। এবার ইউনিয়নবাসী পরিবর্তন চেয়েছে, তাই আমি তাদের কথা চিন্তা করে নৌকার প্রত্যাশী হয়ে নৌকার প্রার্থী মনোনীত হয়েছি। দলের নেতাকর্মীগণ সমর্থনও দিয়েছেন আমাকে। আশা রাখি ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণ এবার আমাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবেন ইনশাআল্লাহ।’

দহবন্দ ইউনিয়নের মনোনীত প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক রেজাউল আলম সরকার রেজা বলেন, ‘বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে বর্তমান চেয়ারম্যান জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন রয়েছেন। সে কারণে এবারে নতুন মুখ দেখতে চেয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সাধারণ ভোটারগণ। তাঁরা সবাই আমাকেই সমর্থন দিয়েছেন। সে কারণে নৌকা পেয়েছি। সবাইকে সাথে নিয়ে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করবো ইন্শ আল্লাহ।’ 

এ্যাডঃ মোখলেছুর রহমান রাজু বলেন, ‘দলীয়ভাবে ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে জনগণের ভোটে বিজয়ী হয়ে ইউনিয়নবাসীর সেবায় নিয়োজিত ছিলাম। আশা করি এবারও ইউনিয়নবাসী আমাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করে আমার অসমাপ্ত কাজগুলো করার সুযোগ করে দেবেন।' 

তফসিল অনুযায়ী তৃতীয় ধাপে আগামী ২৮ নভেম্বর উপজেলার ১৩ ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য মনোনয়নপত্র জমা দানের শেষ তারিখ ২ নভেম্বর। এছাড়া মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ৪ নভেম্বর এবং প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১১ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে।

আগামীনিউজ/শরিফ