Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

বাকৃবির আতিথেয়তায় মুগ্ধ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা


আগামী নিউজ | বাকৃবি প্রতিনিধি প্রকাশিত: নভেম্বর ২৯, ২০২১, ০৭:৫৪ পিএম
বাকৃবির আতিথেয়তায় মুগ্ধ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা

ছবি: আগামী নিউজ

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের কৃষি গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয় গত ২৭ নভেম্বর। সেদিন সকাল সাড়ে ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদীয় ভবন, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি, ক্যাম্পাস প্রাঙ্গনে অবস্থিত বিভিন্ন স্কুল ও কলেজে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ছিল ৬৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ। দূর-দূরান্ত থেকে পরীক্ষার জন্যে আসা এসকল শিক্ষার্থীদের থাকার ব্যবস্থা করে বাকৃবির শিক্ষার্থীরা। এতে মুগ্ধ হয়েছেন বলে জানিয়েছেন পরীক্ষা দিতে আসা ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, প্রতিবছর ভর্তি পরীক্ষার্থীদের থাকার ব্যবস্থা করে বাকৃবি পরিবার। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন, রাজনৈতিক সংগঠন এবং ধর্মীয় সংগঠনসহ সকলেই ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের থাকার জন্যে সুন্দর ও সুষ্ঠু পরিবেশের ব্যবস্থা করে থাকে। অনেক হলেই শিক্ষার্থীদের জন্যে সকালের নাস্তার ব্যবস্থা রাখা হয়। এছাড়া সার্বক্ষণিক তাদের ভালো-মন্দেও খোঁজ খবরও রাখা হয়।

মো. রাশিদ সাবাব নামে এক ভর্তি পরীক্ষার্থী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলেন, আমার পরীক্ষা ছিল বাকৃবি কেন্দ্রে। ঠাকুরগাঁও থেকে ময়মনসিংহ যাওয়া আমাদের জন্য অনেক কঠিন ছিল।  এছাড়া থাকা নিয়ে ছিলাম অনেক বেশি চিন্তায়। অনেক খোঁজাখুজির পরে অপু ভাইয়ার নাম্বার পায়। তারপর এক ফোনেই সব সমাধান কওে দিলেন তিনি। বাকৃবিতে গিয়ে উঠলাম শাহজালাল হলে। থাকা থেকে খাওয়া সকল ব্যবস্থায় তিনি করলেন। অনেক জায়গায় পরীক্ষা দিতে গিয়ে থেকেছি কিন্তু এমনভাবে কেউ ব্যবস্থা কওে নাই। এছাড়া অভিবাবকের মতো পরীক্ষার হল পর্যন্ত রেখে এসেছিল জাহিদ ভাই। আজীবন মনে থাকবে এমন আতিথেয়তা।

ভর্তি পরীক্ষার্থী আরেক শিক্ষার্থী বলেন, ক্যাম্পাস এবং সিনিয়র আপুদের ব্যবহার দুটোটাই মুগ্ধ করেছে। আমি পরীক্ষার একদিন আগে রোকেয়া হলে মুনা আপুর কাছে ছিলাম। তারপর আপুর সাথে ক্যাম্পাস দেখতে বের হয়। কৃষি অনুষদের করিডোর, জব্বার মোড়, টিএসসি, দেবদারু রোড, প্লাটফর্ম সবকিছুই অনেক সুন্দর। মিল্কশেক, লাচ্ছি, চিতইপিঠা, ঝালপিঠা আরো অনেককিছু ট্রিট পেয়েছি। এছাড়া অন্য আপুরাও রান্না করে খাওয়ালো, চা বানালো। তাদের আতিথেয়তায় আমি সত্যি মুগ্ধ।

আগামীনিউজ/ হাসান