Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

বাকৃবিতে গুচ্ছ ভর্তিতে উপস্থিতির হার ৬৯ শতাংশ


আগামী নিউজ | বাকৃবি প্রতিনিধি প্রকাশিত: নভেম্বর ২৭, ২০২১, ০৫:১৪ পিএম
বাকৃবিতে গুচ্ছ ভর্তিতে উপস্থিতির হার ৬৯ শতাংশ

ছবি: আগামী নিউজ

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের কৃষি গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। আজ (২৭ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদীয় ভবন, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি, ক্যাম্পাস প্রাঙ্গনে অবস্থিত স্কুল ও কলেজে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ছিল ৬৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ। এবার পরীক্ষা আয়োজনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিল বঙ্গবন্ধু   শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বশেমুরকৃবি)।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সূত্রে জানা যায়, এবার ভর্তি পরীক্ষায় বাকৃবি কেন্দ্রে ১৫ টি অঞ্চলে ২৪১ টি কক্ষে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। যেখানে ১২৫০০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উপস্থিত ছিলো ৮৭৩১ জন। পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসসহ কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে বিভিন্ন কক্ষ পরিদর্শন করেন বাকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান, ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. এ. কে. এম জাকির হোসেন, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ মহির উদ্দীন, বশেমুরকৃবির কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক তোফায়েল আহমেদ সহ অনেকে।

বিশ^বিদ্যালয়ের সূত্রে জানা যায়, এবার ভর্তি পরীক্ষায় বাকৃবি কেন্দ্রে ১৫ টি অঞ্চলে ২৪১ টি কক্ষে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে, যেখানে ১২৫০০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উপস্থিত ছিলো ৮৭৩১ জন। । পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসসহ কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বললে তারা বলেন, প্রশ্ন মোটামুটি সহজ হয়েছিল। কিন্তু কেন্দ্র নিয়ে ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। বিশ^বিদ্যালয়ের সকলেই খুবই আন্তরিক। আমাদের বিভিন্ন বিষয়ের সমস্যা সমাধানে সাহায্য করেছেন।

পরীক্ষার সার্বিক বিষয়ে বাকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান বলেন, অত্যন্ত সুন্দর ও সুষ্ঠু পরিবেশে পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। গুচ্ছ পদ্ধতিতে পরীক্ষা আয়োজনের ফলে শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের সময় ও কষ্ট লাঘব হয়েছে। শিক্ষার্থীরা এবার যেসব ক্ষেত্রে ভোগান্তির শিকার হয়েছে পরবর্তীতে সেই সমস্যার সমাধান করা হবে।

বশেমুরকৃবির কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক তোফায়েল আহমেদ শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির বিষয়ে বলেন, শিক্ষার্থীদের কেন্দ্র নিয়ে বিড়ম্বনার বিষয়ে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এবার মেরিট এবং পছন্দের বিষয়ে উপর ভিত্তি করে কেন্দ্র দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কেন্দ্রে সিট সংখ্যার সীমাবদ্ধতার কারণে সবাইকে পছন্দক্রম অনুযায়ী কেন্দ্র দেওয়া সম্ভব হয়নি। 

উল্লেখ্য, এবার বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে একযোগে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আগামীনিউজ/ হাসান