August
Dr. Neem on Daraz
Dr. Neem Hakim

বগি রেখে কমলাপুর স্টেশন ছাড়ল ট্রেন


আগামী নিউজ | ডেস্ক রিপোর্ট প্রকাশিত: জুলাই ৪, ২০২২, ১২:৫৭ পিএম
বগি রেখে কমলাপুর স্টেশন ছাড়ল ট্রেন

ঢাকাঃ রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে পঞ্চগড়গামী একতা এক্সপ্রেস একটি বগি রেখেই স্টেশন ছেড়েছে। সোমবার (৪ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ট্রেনটি স্টেশন ছাড়ে। ট্রেনটি ছাড়ার সঠিক সময় ছিল সকাল ১০টা দশ মিনিটে।

জানা গেছে, একতা এক্সপ্রেসের ‘ট’ নম্বর বগির জন্য ১০৫ জন যাত্রী টিকিট কেটেছিলেন। ‌তাদের অধিকাংশ যাত্রী এ ঘটনায় ট্রেনটি মিস করেছেন। ট্রেনটির ‘ট’ নম্বর বগিতে আগে থেকেই ত্রুটি ছিল তাই সেটিকে বাতিল করা হয় এবং মূল ট্রেনের শেষে রাখা হয়। ফলে অনেক যাত্রী বগি বাতিলের তথ্য না জেনেই সেখানে উঠে পড়ে।  

কর্তৃপক্ষ বলছে, বগি বাতিলের বিষয়টি সকাল ৯টা সময় সবাইকে অবগত করা হয়েছে। তবে আগে যারা বিষয়টি জেনেছে, তারা অনেকে অন্য বগিতে উঠেছে। 

একতা এক্সপ্রেস (৭০৫) ট্রেনটি রাজধানী কমলাপুর স্টেশন থেকে পঞ্চগড়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলওয়ে স্টেশন (পঞ্চগড় রেলওয়ে স্টেশন) পর্যন্ত চলাচল করে।

একতা এক্সপ্রেসের এক যাত্রী বলেন, আমাদের স্টেশনে পৌঁছাতে কিছুটা দেরি হয়। যার ফলে আমরা এসে দেখি ৭ নম্বর প্ল্যাটফর্মে ট্রেনটি দাঁড়িয়ে আছে। পরে আমাদের আসন নিশ্চিত করে ট্রেনে বসি। হঠাৎ জানতে পারি আমাদের বগি রেখেই একতা এক্সপ্রেস ট্রেন চলে গেছে। এ সময় বগিতে ১০০ থেকে ১৫০ জন যাত্রী ছিল। কিন্তু এ বিষয়ে আমরা কিছুই জানতাম না

এ বিষয়ে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার মাসুদ সারওয়ার বলেন, আমরা এ বিষয়ে ঘোষণা দিয়েছি সকাল নয়টায়। আমরা সর্বোচ্চ এফর্ট দিয়েছি। আমাদের কাছে অতিরিক্ত বগি ছিল না। ট্রেনটি আসার পথে বগিতে কোন দুর্ঘটনা ঘটেছিল। এটা কি কারণে হয়েছে আমরা জানি না, এটা বগির মেটেরিয়ালস দুর্বলতা থেকে হতে পারে। কালকে থেকে কোন কোচ এমন হলে রিপ্লেস না ছাড়া যাবে না। এতে বগির যাত্রীদের টিকিট ফেরত নেওয়া হয়েছে।

এদিকে আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে আজ (সোমবার) চতুর্থ দিনের মতো ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি চলছে। টিকিট নামের এই সোনার হরিণ পেতে অনেকেই দুদিন ধরে লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন। আবার কেউ কেউ ৯ জুলাইয়ের টিকিটের জন্য এরই মধ্যে লাইনে দাঁড়িয়ে গেছেন।

সোমবার (৪ জুলাই) সকাল ৮টা থেকে এ টিকিট বিক্রি শুরু হয়। বরাবরের মতো আজকেও কাউন্টারের পাশাপাশি অর্ধেক টিকিট মিলছে অনলাইন ও অ্যাপে। রেলওয়ে কতৃপক্ষ জানায়, সোমবার দেওয়া হচ্ছে ৮ জুলাইয়ের টিকিট। ৯ জুলাইয়ের টিকিট ৫ জুলাই বিক্রি হবে।

এছাড়া ১১ জুলাইয়ের ট্রেনের ফিরতি টিকিট ৭ই জুলাই, ১২ জুলাইয়ের টিকিট ৮ জুলাই, ১৩ জুলাইয়ের টিকিট ৯ জুলাই এবং ১৪ ও ১৫ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি করা হবে ১১ জুলাই। অনলাইন টিকিটের অর্ধেক ওয়েবসাইটে এবং অর্ধেক অ্যাপে বিক্রি করা হবে।

গরমের মধ্যে মানুষের উপচেপড়া ভিড়ে কমলাপুরের আবহাওয়া আরও গরম হয়ে উঠেছে। গরম থেকে বাঁচতে কেউ কেউ হাতপাখা নিয়ে এসেছেন। এরপরও ভ্যাপসা গরমের হাত থেকে রক্ষা মিলছে না। গরমে কেউ অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। এরপরও ঘণ্টার পর ঘণ্টা ট্রেনের টিকিটের জন্য লাইনে অপেক্ষা করছেন তারা।

এমবুইউ