Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

আবহাওয়ার কারণে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন আপাতত স্থগিত


আগামী নিউজ | নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৬, ২০২১, ০৩:২৪ পিএম
আবহাওয়ার কারণে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন আপাতত স্থগিত

ছবিঃ সংগৃহীত

ঢাকাঃ বৈরী আবহাওয়ার কারণে আপাতত নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন স্থগিত ঘোষণা করেছে শিক্ষার্থীরা। তবে বৈরী আবহাওয়ার কেটে গেলে শিক্ষার্থীরা আবারও তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবার ঘোষণা দিয়েছে। তারা বৃষ্টি উপেক্ষা করে আজ রামপুরা ব্রিজে মুখে কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন।

পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী শিক্ষার্থীরা সোমবার (০৬ ডিসেম্বর) দুপুরে রামপুরা ব্রিজের হাতিরঝিল অংশে মুখে কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। বৃষ্টিতে ছাতা মাথায় দাঁড়িয়ে থেকে মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে আন্দোলন আপাতত স্থগিতের ঘোষণা করেন খিলগাঁও মডেল কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী সোহাগী সামিয়া।

সোহাগী সামিয়া বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে আমরা আগামীকাল কোন কর্মসূচি রাখছি না। আমরা খোঁজ নিয়ে দেখেছি আরও কয়েকদিন এরকম বৈরী আবহাওয়া থাকবে। যতদিন পর্যন্ত এই বৈরী আবহাওয়া থাকবে ততদিন পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন স্থগিত থাকবে। তবে বৈরী আবহাওয়া কেটে গেলে আমরা আবার কর্মসূচি চালিয়ে যাব।

তিনি বলেন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে আমাদের কিছু সুনির্দিষ্ট কর্মসূচি আছে। একটি হচ্ছে মঈনুদ্দীনের স্কুল থেকে নাইমের কলেজ পর্যন্ত সাইকেল র‍্যালি করা। পরে নাইমের কলেজে গিয়ে আমরা মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করব। অপরটি হচ্ছে আমরা ছাত্র-শিক্ষক সবাই মিলে একটি সমাবেশ করবো।

সোহাগী সামিয়া বলেন, এই যে এতগুলো সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে কিন্তু প্রশাসন বরাবরই নীরব ভূমিকা পালন করছে। প্রশাসনের এই নীরবতার প্রতিবাদে আমরা আজ মুখে কালো কাপড় বেঁধে নিরব আন্দোলন পালন করছি।

কালো কাপড় বেঁধে আন্দোলন করার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রথমত সড়কে যারা নিহত হয়েছেন দুর্ঘটনায় তাদের প্রতি শোক প্রকাশ করার জন্য আমরা কালো কাপড় বেঁধেছি। আর দ্বিতীয়টি হচ্ছে সরকারের নীরব ভূমিকায় প্রতিবাদে আমরা আন্দোলন করছি।

তিনি বলেন, আমাদের দাবি আদায় না হওয়ার পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। প্রয়োজন হলে আমরা আরও ২১ বছর আন্দোলন চালিয়ে যাব।

এর আগে রোববার (৫ ডিসেম্বর) শিক্ষার্থীরা মানববন্ধনের মাধ্যমে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করেন। এর আগে শনিবার নিরাপদ সড়কের দাবিতে লাল কার্ড প্রদর্শন করেছিল শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা বলছেন, ১১ দফা দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন।

আগামীনিউজ/বুরহান