Dr. Neem on Daraz
Dr. Neem Hakim

ভারতে একদিনে ৩ লাখ ৪৭ হাজার করোনা রোগী শনাক্ত


আগামী নিউজ | আন্তর্জাতিক ডেস্ক প্রকাশিত: জানুয়ারি ২১, ২০২২, ১২:০৮ পিএম
ভারতে একদিনে ৩ লাখ ৪৭ হাজার করোনা রোগী শনাক্ত

ছবিঃ সংগৃহীত

ঢাকাঃ ভারতে লাফিয়ে বাড়ছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। প্রায় প্রতিদিনই নতুন করে সংক্রমণের রেকর্ড হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণ গত কয়েক দিনের রেকর্ড ভেঙেছে। নতুন করে একদিনেই আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ৪৭ হাজার ২৫৪ জন। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৯৪ শতাংশ।

একই সময়ে দেশটিতে মারা গেছেন ৭০৩ জন। এছাড়া সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ লাখ ৫১ হাজার ৭৭৭ জন। শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

মহামারি শুরুর পর ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ কোটি ৮৫ লাখ ৬৬ হাজার ২৭ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন মৃত্যু ৪ লাখ ৮৮ হাজার ৩৯৬ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ কোটি ৬০ লাখ ৫৮ হাজার ৮০৬ জন। বিশ্বে করোনা সংক্রমণের হিসাবে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে দেশটি।

সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে কেরালায়। রাজ্যটিতে একদিনে করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৩৪১ জন। এ নিয়ে কেরালায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১ হাজার ৫০১ জনে। নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৪৬ হাজার ৩৬৯ জন। এ রাজ্যে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ৫৫ লাখ ১০ হাজার ৮৪৪ জন। এছাড়া রাজ্যটিতে সুস্থ হয়েছেন ১৫ হাজার ৩৮৮ জন।

সংক্রমণের তালিকায় রাজ্যগুলোর মধ্যে শীর্ষে থাকা মহারাষ্ট্রে একদিনে শনাক্ত হয়েছে ৪৫ হাজার ৯৩২ জন। একই সময়ে সেখানে মারা গেছেন ৩৭ জন। অন্যদিকে দিল্লিতে একদিনে ১২ হাজার ৩০৬ জন শনাক্ত এবং ৪৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গে একদিনে শনাক্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৯৫৯ জন, কর্নাটকে ৪৭ হাজার ৭৫৪ জন, তামিলনাড়ুতে ২৮ হাজার ৫৬১ জন, উত্তর প্রদেশে ১৮ হাজার ৪২৯ জন, দিল্লিতে ১২ হাজার ৩০৬ জন এবং গুজরাটে ২৪ হাজার ৪৮৫ জন শনাক্ত হয়েছেন।

এছাড়া সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে দিল্লিতে ৪৩ জন, তামিলনাড়ুতে ৩৯ জন, পাঞ্জাবে ৩৬ জন, পশ্চিমবঙ্গে ৩৭ জন, কর্নাটকে ২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে, ভারতের ২৯ রাজ্যে এখন পর্যন্ত ৮ হাজার ২০৯ জনের দেহে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। করোনার অতি সংক্রামক ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রণের প্রভাবে বিশ্বজুড়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ।

দেশটিতে বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) টিকা নিয়েছেন ৭৩ লাখ ৩৮ হাজার ৫৯২ জন। এনিয়ে দেশটিতে ৭০ শতাংশের বেশি মানুষ দুই ডোজ টিকার আওতায় এসেছে বলে জানিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

আগামীনিউজ/নাসির