Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

আগামী এক বছরের মধ্যে করোনা মহামারির সমাপ্তি হবে: মডার্নার সিইও


আগামী নিউজ | আন্তর্জাতিক ডেস্ক প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১, ০৯:৫৮ এএম
আগামী এক বছরের মধ্যে করোনা মহামারির সমাপ্তি হবে: মডার্নার সিইও

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকাঃ আগামী এক বছরের মধ্যেই করোনাভাইরাস মহামারির সমাপ্তির আশা করছেন যুক্তরাষ্ট্রের টিকা প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান মডার্না। মডার্নার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা স্টেফানস ব্যানসেল এর পেছনে যুক্তি হিসেবে করোনার টিকার উৎপাদন বৃদ্ধি ও বৈশ্বির সরবরাহ বাড়ার কথা বলেন। সুইজারল্যান্ডের একটি পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন। খবর রয়টার্সের।

সাক্ষাৎকারে ব্যানসেল বলেন, ‘গত ছয় মাসে (কোভিড) টিকা উৎপাদন–সক্ষমতা বৃদ্ধির দিকে তাকালে দেখবেন, আগামী বছরের মাঝামাঝি নাগাদ যথেষ্ট পরিমাণ টিকা পাওয়ার যাওয়ার কথা, যার ফলে বিশ্বের প্রত্যেককে টিকা দেওয়া সম্ভব হবে। প্রয়োজন পড়লে বুস্টার ডোজও দেওয়া সম্ভব হবে।’

মডার্নার সিইও আরও বলেন, শিশুদের জন্যও শিগগিরই টিকাদান কর্মসূচি চালু করা যাবে।

‘যাঁরা টিকা পাচ্ছেন না, তাঁরাও স্বাভাবিকভাবে প্রতিষেধক টিকা নেবেন। কারণ, করোনার ডেলটা ধরন অতিসংক্রামক। এভাবে একসময় করোনাজনিত মহামারি পরিস্থিতি সাধারণ ফ্লু’র (ঠান্ডা-জ্বর) মতো পর্যায়ে চলে আসবে। তাতে পরিস্থিতি এমন হবে যে, হয় আপনি টিকা নিয়ে ভালোভাবে শীতকাল পার করবেন, নতুবা টিকা না নিয়ে আপনি অসুস্থ হওয়ার ঝুঁকিতে থাকবেন এবং শেষ পর্যন্ত হয়তো আপনাকে হাসপাতালে যেতে হবে’, যোগ করেন ব্যানসেল।

এর মানে কি আগামী বছরের মাঝামাঝিতে পৃথিবী করোনার আগের স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরছে—এমন প্রশ্নের জবাবে ব্যানসেল বলেন, ‘আজ থেকে এক বছরের মধ্যে (পৃথিবী স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরবে)... আমি তেমনটাই মনে করি।’

এ ছাড়া ব্যানসেল বলেন, বিশ্বের দেশগুলোর সরকার কোভিড টিকার বুস্টার ডোজের অনুমোদন দেবে বলে তিনি প্রত্যাশা করছেন। কারণ, যেসব ঝুঁকিপূর্ণ রোগী গত শরৎকালে টিকা নিয়েছেন, তাঁদের ‘নিঃসন্দেহে’ নতুন ডোজ দরকার।

মর্ডানার বুস্টার ডোজ মূল ডোজের অর্ধেক পরিমাণে লাগায় অনেক মানুষকে টিকা দেওয়া সম্ভব হবে বলে ব্যানসেল জানান।

ব্যানসেল বলেন, ‘টিকার পরিমাণ সবচেয়ে বড় বাধা। বুস্টার ডোজে মূল ডোজের অর্ধেক পরিমাণ লাগায় আগামী বছর আমরা বিশ্বব্যাপী ৩০০ কোটি ডোজ দিতে পারব, যা আগে ছিল ২০০ কোটি।’

পর্যাপ্ত সময় না পাওয়ায় বুস্টার ডোজের উপাদান এ বছর উৎপাদিত টিকার মতো থাকছে বলেও জানান ব্যানসেল।

এ ছাড়া ব্যানসেল বলেন, ‘আমরা এখন করোনার ডেলটা ধরন প্রতিরোধ করতে পারে, ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে এমন টিকার পরীক্ষা করছি। আগামী বছরের বুস্টার ডোজে সে টিকাই পাওয়া যাবে। এ ছাড়া আমরা করোনার ডেলটা প্লাস বিটা ধরন নিয়েও কাজ করছি। বিজ্ঞানীরা মনে করছেন, করোনার পরবর্তী ভ্যারিয়্যান্ট হতে যাচ্ছে এই ডেলটা প্লাস বিটা।’

বর্তমান উৎপাদন ব্যবস্থায় করোনার নতুন ভ্যারিয়্যান্টের জন্যও টিকা তৈরি করা যাবে বলে মডার্না জানিয়েছে। সে ক্ষেত্রে মডার্নার তৈরি কোভিড টিকার দাম একই থাকবে বলে ব্যানসেল জানান।