Agaminews
Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

৫০ লাখ পরিবার পাচ্ছে নগদ অর্থ সহায়তা


আগামী নিউজ | ডেস্ক রিপোর্ট প্রকাশিত: এপ্রিল ১৬, ২০২১, ১০:১০ এএম
৫০ লাখ পরিবার পাচ্ছে নগদ অর্থ সহায়তা

ছবিঃ সংগৃহীত

ঢাকাঃ করোনা নিয়ন্ত্রণে সারাদেশে চলছে কঠোর লকডাউন। প্রাথমিকভাবে এর মেয়াদ সাত দিন বলা হলেও পরবর্তী সময়ে তা আরও বাড়ানোর সম্ভাবনা রয়েছে। এ সময় যানবাহন চলাচল বন্ধসহ সাধারণ মানুষের চলাচলেও বিধিনিষেধ রয়েছে। এর ফলে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সমাজের দরিদ্র শ্রেণি। তাদের আয় রোজগার বন্ধ হয়ে গেছে।

লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০ লাখ দরিদ্র পরিবারকে নগদ অর্থ (আড়াই হাজার টাকা) সহায়তা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। বিষয়টি ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে ঈদ উপহার দেওয়া এবং আরও তিনটি প্রণোদনা প্যাকেজ খুব শিগগিরই উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত বছর মে ও জুন মাসে প্রথমবারের মতো করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৩৫ লাখ পরিবারকে আড়াই হাজার টাকা করে নগদ সহায়তা দেওয়া হয়েছিল।

অবস্থানপত্রে দেখা যায়, ভুয়া তালিকায় নাম এসেছে সরকারি চাকুরে, অন্য সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি থেকে সুবিধাপ্রাপ্ত ব্যক্তি, পেশা হিসেবে দেখানো হয়েছে বেদে, গৃহিণী, হিজড়া, পথশিশু, প্রতিবন্ধী, ইমাম, চা-শ্রমিক, চা দোকানদার, ভিক্ষুক, ভবঘুরে, বেকার ইত্যাদি। শুধু তাই নয়, সঞ্চয়পত্রে ৫ লাখ টাকা বিনিয়োগ রয়েছে- এমন ব্যক্তির নামও রয়েছে এই তালিকায়। এছাড়া রয়েছে পেনশনভোগীর নামও।

পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর আমাদের সময়কে বলেন, গত বছর অনিয়মের কারণে সহায়তা বন্ধ করে সরকার। কিন্তু নিজস্ব আইডেন্টিফিকেশনের মাধ্যমে সহায়তা করতে হবে। নিজস্ব মোবাইলের মাধ্যমে সুবিধাভোগীকেই তার নাম, জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর এবং মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসের নাম্বার বা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট দিতে হবে। কেউ যেন দুর্নীতির আশ্রয় নিতে না পারে বা ট্রাকিংয়ের সুযোগ না থাকে তার জন্য ব্যবস্থা নিতে হবে।

গত বছর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে ৫০ লাখ দুস্থ মানুষের তালিকা চাওয়া হয়। কিন্তু তাদের পাঠানো দুস্থ মানুষের মধ্যে ২৮ লাখ মানুষের তালিকাই ছিল ভুয়া। ভুল তালিকার জন্য ৩৩ লাখ ৮৩ হাজার ৬৪৪ পরিবারে নগদ সহায়তা পাঠানো স্থগিত রাখা হয়েছিল।

আগামীনিউজ/জনী