Dr. Neem on Daraz
Dr. Neem Hakim

বাল্য বিয়ে: ম্যাজিস্ট্রেট আসার কথা শুনে ভাবিই বসলেন বিয়ের পিঁড়িতে


আগামী নিউজ | নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৩, ২০২১, ১২:৪৫ পিএম
বাল্য বিয়ে: ম্যাজিস্ট্রেট আসার কথা শুনে ভাবিই বসলেন বিয়ের পিঁড়িতে

ছবিঃ আগামী নিউজ

দিনাজপুর: জেলার বিরামপুরে এক কিশোরীর বাল্য বিয়ে ভেঙে দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের ন্যাটাশন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, কনের বয়স মাত্র ১৪ বছর হওয়ায় রাতের বেলা গোপনে বিয়ের আয়োজন করেছিলেন পরিবার। পাত্র ছিলেন নবাবগঞ্জ উপজেলার কুশদহ ইউনিয়নের সেকেন্দার আলীর ছেলে রুবেল হোসেন (৩০)। বিয়ে পড়ানোর এক পর্যায়ে জানা গেলো এই বাড়িতে হানা দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। তাৎক্ষনিক কনের ভাবি নিজেই সেজে যান কনে।

কিন্তু ম্যাজিস্ট্রেট তাদের এই সাজানো নাটক ধরে ফেলেন। বিয়ের কাজী রেহান রেজাকে (৪৭) ছয় মাসের কারাদণ্ড ও বড় রুবেল হোসেনকে করেন ২ হাজার টাকা জরিমানা।

বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরিমল কুমার সরকার জানান, বৃহস্পতিবার রাতে খানপুর ইউনিয়নের ন্যাটাশন গ্রামে ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া এক শিক্ষার্থীর বিয়ে হচ্ছে এমন খবর পাই। পরে থানা পুলিশকে সাথে নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হই। প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে বিয়ের কাজী পালানোর চেষ্টা করেন এবং কনের ভাবি তাৎক্ষণিক কনের বিয়ের আসর থেকে সরিয়ে নিজেই কনের আসরে বসেন। ঘটনাস্থল থেকে কাজী ও বর ও কনের ভাবিকে আটক করা হয় এবং সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালতে মাধ্যমে কাজী রেহান রেজাকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও বর রুবেল হোসেনকে দুই হাজার টাকার জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আরও জানান, ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া ওই ছাত্রীকে ১৮ বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না এমন স্বীকারোক্তিতে মুচলেকা নিয়ে কনের ভাবি ও পরিবারের অন্যান্যদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

আগামীনিউজ/এসআই