Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

কক্সবাজারে আটক যুবকই ইকবাল: কুমিল্লার এসপি


আগামী নিউজ | নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: অক্টোবর ২২, ২০২১, ১২:২৬ পিএম
কক্সবাজারে আটক যুবকই ইকবাল: কুমিল্লার এসপি

ছবিঃ সংগৃহীত

কুমিল্লাঃ জেলার ঘটনায় জড়িত সন্দেহ কক্সবাজারে আটক ব্যক্তিই সিসিটিভি ক্যামেরায় শনাক্ত হওয়া ইকবাল বলে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ।শুক্রবার (২২ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ। কক্সবাজার থেকে তাকে কুমিল্লায় আনা হচ্ছে। এর নেতৃত্বে আছেন কুমিল্লা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সোহান সরকার।

পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ জানান, কুমিল্লা নগরীর নানুয়ার দীঘিরপাড়ে পূজামণ্ডপে কোরআন রেখেছিলেন দ্বিতীয় মুরাদপুর লস্করপুকুরপাড়ের বাসিন্দা ইকবাল হোসেন। মণ্ডপের আশপাশসহ নগরীর বেশ কয়েকটি এলাকার সিসিটিভির ফুটেজ দেখে তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। আমাদের টিম কক্সবাজার গিয়ে পরিচয় নিশ্চিত করেছে। আটক ব্যক্তিই কুমিল্লার নানুয়ার দিঘির পাড়ের অস্থায়ী পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রেখেছেন। তাকেই সিসিটিভি ফুটেজে শনাক্ত করা হয়েছে। আমাদের একটি টিম তাকে নিয়ে কুমিল্লার উদ্দেশে রওনা দিয়েছে। আশা করা হচ্ছে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনাসংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যাবে। এ বিষয়ে পরে গণমাধ্যমকে জানানো হবে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।পুলিশের দেওয়া তথ্য মতে, ইকবালের বাবার নাম নূর আহমেদ আলম। তাদের বাড়ি কুমিল্লা নগরের সুজানগর এলাকায়। 

উল্লেখ্য, শারদীয় দুর্গাপূজার মহা অষ্টমীর দিন গত ১৩ অক্টোবর ভোরে কুমিল্লা শহরের নানুয়া দীঘির উত্তর পাড়ে একটি অস্থায়ী পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ দেখা যায়। এরপর কোরআন শরিফ অবমাননার অভিযোগ তুলে ওই মণ্ডপে হামলা চালায় একদল লোক। সেখানে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়। 

এর জেরে ধরে ওই দিন চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে হিন্দুদের ওপর হামলা করতে যাওয়া একদল ব্যক্তির সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। সেখানে নিহত হন পাঁচজন। পরদিন নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে হিন্দুদের মন্দির, মণ্ডপ ও দোকানপাটে হামলা–ভাঙচুর চালানো হয়। সেখানে হামলায় দুজন নিহত হন। এরপর রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু বসতিতে হামলা করে ভাঙচুর, লুটপাট ও ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। দেশের আরও অনেক এলাকায় হিন্দুদের মন্দির, মণ্ডপসহ বিভিন্ন স্থাপনায় হামলা করা হয়। সর্বশেষ নানুয়ার দিঘির পাড়ের অস্থায়ী পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার ঘটনায় সহিংসতায় আহত দর্শনার্থী দিলীপ দাস (৬২) চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মারা গেছেন।

আগামীনিউজ/বুরহান