Agaminews
Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

কলাপাড়ায় আনসার ব্যাটালিয়ানের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ


আগামী নিউজ | রাসেল কবির মুরাদ, কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি প্রকাশিত: মে ৭, ২০২১, ০৮:৩৭ পিএম
কলাপাড়ায় আনসার ব্যাটালিয়ানের সঙ্গে স্থানীয়দের সংঘর্ষ

ছবিঃ আগামী নিউজ

পটুয়াখালীঃ জেলার কলাপাড়া পৌরশহরের নাচনাপাড়া এলাকায় আনসার ব্যাটালিয়ান ক্যাম্পের সম্মূক্ষে স্থানীয় বাসীন্দাদের সঙ্গে মনজিদের গাছ কাটা নিয়ে আনসার সদস্যদের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে।

আনসার ব্যাটালিয়ান সদস্যদের ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও লাঠিপেটায় নারীসহ  ১৪জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে নুর আলম (৪০) ও তানিয়াকে (২৫) কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্র্তি করা হয়েছে। শুক্রবার জুমার নামাজের পরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থাণীয় ও এলাকাসীদের সূত্রে জানা যায়, আনসার ব্যাটালিয়ান ক্যাম্পের সাামনের বাসীন্দারা স্থানীয় মসজিদের জন্য ২টি গাছ কাটছিল, একে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে। প্রায় আধাঘন্টা দুপক্ষের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। পরে কলাপাড়া থানা পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তিন আনসার সদস্য আহতের দাবি করলেও কেউ নাম জানায়নি।

স্থানীয়দের অভিযোগ, আনছার ক্যাম্প বাউন্ডারির মসজিদটি তাঁরা নির্মাণ করেন ১৯৮৯ সালে। করোনা পরিস্থিতির কারনে ওই মসজিদে বাইরের লোকজনকে নামাজ পড়তে নিষেধ করা হয়। যার প্রেক্ষিতে বেড়িবাঁধের বাইরের বাসীন্দারা একটি পাঞ্জেগানা মসজিদ তৈরি করেন। সেখানকার মসজিদ ঘরের সমস্যার জন্য বনবিভাগের দুইটি গাছ কাটছিল। ওই গাছ কাটতে বাধা দেন আনসার সদস্যরা এবং আবুল কালাম নামের এক ব্যক্তিকে ধরে নিয়ে মারধর করা হয়।

এখবর ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজিত মানুষের আনসার সদস্যদের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টাধাওয়ায় লিপ্ত হয় এবং ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। দ্রুত পুলিশ গিয়ে আহতদের হাসপাতালে পাঠায়। এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এখন পরিস্থিতি সম্পুর্ণ শান্ত রয়েছে। পরে ঘটনাস্থলে কলাপাড়ার ইউএনও আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হকসহ পুলিশের উর্ধতন কর্তৃপক্ষ উপস্থিত হয়েছেন।

আহতরা আনসার সদস্যদের দায়ী করে জানান, শুধু শুধু তারা একজনকে ধরে নিয়ে মারধর করেছে। একজনকে মসজিদ থেকে বের করে দেয়ারও অভিযোগ করেন। এরপরে আনসার সদস্যরা সবাই একযোগে সাধারণ মানুষের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেছে।

আগামীনিউজ/এএস