Agaminews
Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

যশোরে করোনাভাইরাসে আরও ২ জনের মৃত্যু


আগামী নিউজ | বিল্লাল হোসেন,যশোর প্রতিনিধি প্রকাশিত: মে ৪, ২০২১, ০৮:৪৯ পিএম
যশোরে করোনাভাইরাসে আরও ২ জনের মৃত্যু

যশোরঃ জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। তারা হলেন শহরের বারান্দীপাড়ার বাসিন্দা সুশীল সাহা (৫৯) ও নীলগঞ্জ তাতিপাড়ার মৃত কাজল কুমার কুন্ডুর স্ত্রী মীরা রানী কুন্ডু (৬৫)। এই নিয়ে মঙ্গলবার পর্যন্ত জেলায় করোনাক্রান্ত হয়ে ৮৭ জন মারা গেলেন। 

এ দিকে গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় নতুন করে আরও ২৮ জনের কোভিড-১৯ নভেল করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালসহ বিভিন্ন কেন্দ্রে ৮ জনের র‌্যাপিড এন্টিজেন পরীক্ষায় ১ জন ছাড়াও যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টারে ১৩২ জনের নমুনায় ২৭ জনের করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। এদিকে, মঙ্গলবার জেলায় আরও ১ হাজার ৮শ’ ২২ জন করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন (টিকা) গ্রহণ করেছেন। 

যশোর সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য কর্মকর্তা ডা. রেহেনেওয়াজ জানান, নতুন শনাক্ত ২৮ জনের মধ্যে সদর উপজেলায় রয়েছেন ২২ জন ঝিকরগাছা উপজেলায় ১ জন, চৌগাছা উপজেলায় ১ জন, বাঘারপাড়া উপজেলায় ২ জন ও অভয়নগর উপজেলায় ২ জন রয়েছেন। ডা. রেহেনেওয়াজ আরও জানান, গত ১ মে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান সুশীল সাহা। তার নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়। ফলাফলে করোনাভাইরাস পজেটিভ এসেছে। 

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আরিফ আহমেদ জানান, গত ২২ এপ্রিলের (বৃহস্পতিবার) ফলাফলে মীরা রানী কুন্ডুর করোনা পজেটিভ শনাক্ত হলে তাকে রেডজোনে ভর্তি করানো হয়।  উন্নত চিকিৎসার জন্য শুক্রবার তাকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়। পথিমধ্যে তিনি মারা যান বলে জানতে পারি। এ দিকে মীরা রানী ছেলে শ্যামল কুন্ডু জানান, ভর্তির পর আমার মার অক্সিজেন লেবেল ৪০ এর নীচে নেমে যায়। তারপরেও ঠিক মতো অক্সিজেন দেয়া হয়নি। মাঝে মাঝে দেয়া হলেও শুক্রবার বিকেল থেকে আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও)  ডা, আরিফ আহমেদের নির্দেশে তাও বন্ধ রাখা হয়। এমনকি হাসপাতালের আইসিইউ বন্ধ রয়েছে বলে জানানো হয়। এরপর রোগীকে রেফার্ড করা হয় ঢাকায়।  বাধ্য হয়ে রাত ১০ টা ২৫ মিনিটে রোগীকে ঢাকার উদ্দেশ্যে নিয়ে রওনা হয়। শনিবার দিবাগত রাতে  মানিকগঞ্জ ব্রিজের কাছে পৌঁছালে মারা যান মীরা রানী কুন্ডু। 

যবিপ্রবির অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান ও পরীক্ষণ দলের সদস্য ড. ইকবাল কবীর জাহিদ জানান, জিনোম সেন্টারে যশোর জেলার ১৩২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৭ জন ছাড়াও মাগুরা জেলার ৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জন ও নড়াইল জেলার ৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১ জনের পজেটিভ পাওয়া যায়। অর্থাৎ তিন জেলার ১৪৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২৯ জন পজেটিভ ও ১১৮ জনের নেগেটিভ আসে। 

সিভিল সার্জন অফিসের তথ্য কর্মকর্তা ডা.রেহনেওয়াজ জানান, সোমবার টিকা গ্রহনকারী ১ হাজার ৮শ ২২ জনের মধ্যে  যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের ৮টি কেন্দ্র থেকে ৪৬৯ জন, মেডিকেল কলেজ কেন্দ্র থেকে ২০৭ জন, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ৪টি কেন্দ্র থেকে ২৫৭ জন, বিমান বাহিনী কেন্দ্রে ৩৯ জন ,পুলিশ হাসপাতালের কেন্দ্র থেকে ২০ জন, শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ টি কেন্দ্রে থেকে  ১১০ জন, ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ টি কেন্দ্র থেকে ৬০ জন,  চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ টি থেকে ৪০ জন,  মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ টি কেন্দ্র থেকে ২০০ জন, কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ টি কেন্দ্র থেকে২৫০৮ জন, বাঘারপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ টি কেন্দ্র থেকে ১৬০ জন ও  অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ টি কেন্দ্র ১১০ জন। মোট ৬৯ হাজার ১শ’ ১ জনের মধ্যে পুরুষ  ৪৪ হাজার ৫শ’ ৬২ জন ও মহিলা রয়েছেন ২৪ হাজার ৫শ’ ৩৯ জন। 

সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানান, ৪ মার্চ পর্যন্ত জেলায় ৩৫ হাজার ৪শ’ ৩১ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পেয়েছি। তাতে ৬ হাজার ৪শ’ ২৪ জন কোভিড-১৯ নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ৮৬ জন নারী পুরুষ। এর মধ্যে যশোরের বিভিন্ন হাসপাতাল ও বাড়িতে মৃত্যু হয়েছে ৭৫ জনের। আর ঢাকায় ৬ জন খুলনায় ৫ জন ও সাতক্ষীরার হাসপাতালে মারা গেছেন ১জন। সিভিল সার্জন আরও জানান, নীলগঞ্জের মীরা রানী কুন্ডুর মৃত্যুর তথ্য এখনো তাদের জানানো হয়নি। তথ্য পেলে মৃত্যু রেকর্ড করা হবে।


আগামীনিউজ/নাহিদ