Agaminews
Dr. Neem
Dr. Neem Hakim
ব্যবহৃত ট্রাক জব্দ

তমালতলার ডাকাতি মামলার রহস্য উদঘাটন: ৫ডাকাত গ্রেফতার


আগামী নিউজ | আব্দুল মজিদ, নাটোর জেলা প্রতিনিধি প্রকাশিত: মে ৩, ২০২১, ০৩:০৬ পিএম
তমালতলার ডাকাতি মামলার রহস্য উদঘাটন: ৫ডাকাত গ্রেফতার

ছবিঃ আগামী নিউজ

নাটোরঃ তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় ও কয়েদির তথ্যসূত্রে নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার তমালতলা বাজারে ঘটে যাওয়া চাঞ্চল্যকর ক্লুলেস ডাকাতি মামলার  রহস্য উদঘাটন এবং আসামীদের গ্রেফতার ও ডাকাতিতে ব্যবহৃত ট্রাক আটক করা হয়েছে।  ডাকাতরা আন্তর্জাতিক মানের ডাকাতি সংঘটিত করে আসছে সারাদেশে। চক্রটিকে গ্রেফতার এবং আইনের আওতায় আনার ফলে এই অঞ্চলে ডাকাতি কমবে বলে দাবি করেন পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা।

সোমবার দুপুর ১২ টায় পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার বলেন, ডাকাতির ঘটনা সংঘটিত হওয়ার পরপরই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বড়াইগ্রাম ও নাটোর সার্কেল এবং মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ইন্সট্রাক্টর এসএম আবু সাদাত এর নেতৃত্বে চারটি টিম গঠন করা হয়।

ঘটনাস্থলের আশপাশ এলাকার বিভিন্ন স্থানের সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করে তা বিশ্লেষণ এবং কারাবন্দীর হতে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে ব্যপক অনুসন্ধান করে বগুড়া জেলার দুপচাঁচিয়া থানার ছোট বেলা বেড়াগাঁও  গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে আব্দুর রহমান (৩৮),  রাজশাহী জেলার বাগমারা থানার ফুলপুর গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে শাহিন আলম (২৭), বাঘা থানার ধন্দহ গ্রামের গোলজার হোসেনের ছেলে সেলিম (২২), নওগাঁ সদরের বিল ভবানীপুর গ্রামের গনি মণ্ডলের ছেলে শাহজাহান মন্ডল (৩৮) ও সরাইল গ্রামের তমিজ মোল্লার ছেলে নাসের (৫৫) বিভিন্ন স্থান থেকে আটক করা হয়। 

এছাড়াও আটককৃতদের তথ্যের ভিত্তিতে ২মে সকাল ১১টার দিকে নওগাঁর রানীনগর থানার হাতি মরার বিল থেকে ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত তিন টনের একটি ট্রাক (রেজিঃ নং চট্র মেট্রো-ড ১১-২৯২২) উদ্ধার করা হয়। আটককৃত আসামিরা ডাকাতির কথা স্বীকার করেছে এবং প্রত্যেকেই ১০ হাজার টাকা করে ভাগ পেয়েছে বলে দাবি করেন  পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা।

তিনি আরো বলেন, বাগাতিপাড়ার রিপন নামে একজন এই ডাকাতদলকে প্রথমে দোকানগুলো দেখিয়ে দেয়। কিন্তু পরে ডাকাতরা রিপনকে আর সাথে নেয় না। এই ডাকাতি মামলার অন্য আসামীদের আটকের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত: গত ২১জানুয়ারি রাত দেড়টার দিকে নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার তমালতলা বাজারে নৈশপ্রহরীদের হাত-পা, চখ-মুখ বেঁধে অজ্ঞাতনামা ১০/১৫ জন মুখোশ পরিহিত ডাকাত তাদেরকে বাজারসংলগ্ন বড়াল নদীর তীরে ফেলে দেয় এবং ওই বাজারের ১১টি দোকানের তালা কেটে প্রায় চার লক্ষাধিক টাকা ডাকাতি করে পালিয়ে যায়।  পরে ওই বাজারের সেক্রেটারি বায়েজিদ বোস্তামী সুইট বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে লিখিত এজাহার দায়ের করলে বাগাতিপাড়া মডেল থানায়  মামলা রুজু হয়।

আগামীনিউজ/এএস