Agaminews
Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

বাগাতিপাড়ায় হামলা ভাংচুর লুটপাট: জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে মানববন্ধন


আগামী নিউজ | নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: এপ্রিল ১১, ২০২১, ০২:৪৩ পিএম

নাটোরঃ আটটি মটর সাইকেলে প্রায় ২৪ জনের একটি সন্ত্রাসী দল বুধবার রাত নয়টার দিকে বাড়িতে ঢুকেই ফিল্মি কায়দায় এলোপাথাড়ি মারপিট, ভাংচুর ও লুঠপাট শুরু করে এবং দুলালের নাম ধরে ডাকতে থাকে। এমন অতর্কিত হামলা দেখে দুলাল বাড়ি থেকে দৌড়ে পালিয়ে পাশের বাড়িতে আশ্রয় নেন।

আর এসময় সামনে এসেজান ছোট ভাই বাবুলাল। সন্ত্রাসীরা তাকে পেয়েই বেধড়ক মারতে থাকে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীদের ছুরির আঘাতে গুরুতর আহত হন বাবুলাল। দুলালকে বাড়িতে না পেয়ে দুটি ঘরের দরজা ভেঙ্গে ফেলে তারা। এ সময় সন্ত্রাসীরা দুলালের ঘরে ঢুকে বাড়ির ইট  কিনতে জমানো দেড় লাখ টাকা লুঠ করে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী দুলাল ও তার পরিবার।

রবিবার বেলা  সাড়ে এগারটায় নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার বাজিতপুরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বাজিতপুর এলাকাবাসীর ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধনে স্থানীয়রা দাবি করেন,  বাঁশ কাটাকে কেন্দ্র করে কথা কাটকাটি হয় চাচা শশুর দুলালের সাথে বৌমা রোজিনার। কিন্তু রোজিনার বাবার বাড়ি নাটোর জেলা শহরে হওয়ায় তার ভাইদেরকে ফোন করে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী এনে রাতে সামান্য সময়ের মধ্যে সিনেমার মতো বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর, লুটপাট, মারপিট ও ছুরিকাঘাত করে বাবুলালকে মারাত্মকভাবে আহত করে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

পরে স্থানীয়রা আহত বাবুলালকে উদ্ধার করে প্রথমে বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন । কিন্তু আঘাত গুরুতর ও প্রচুর রক্ত খরণ হওয়ায় চিকিৎসক রোগীকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন ।

এ ঘটনায় দুলাল বাদি হয়ে বাগাতিপাড়া মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করাতে রোজিনা ও স্বামী আব্দুর রশিদ আবারো নতুনভাবে হামলা ও মিথ্যা মামলার ভয় দেখাচ্ছে। তাই পুরো পরিবার এখন নিরাপত্তা সংকটে বলে মানববন্ধনে দাবি করেন।

তবে আব্দুর রশিদ মুঠোফোনে 'আগামী নিউজ'কে জানান, শশুর বাড়ি থেকে কয়েকজন লোক এসেছিলো তাদের সাথে কথাকাটাকাটি হয়েছে  কিন্তু  হামলা বা কাউকে আহত করেননি। বরং আমার স্ত্রীকেই মারধর করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে ঘটনাটি সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে অভিযুক্ত সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে ন্যায় বিচারে দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী পরিবার ও বাজিতপুর এলাকাবাসী।

আগামীনিউজ/নাহিদ