Agaminews
Dr. Neem Hakim

একজন মানবপ্রেমী ও সফল নেতা মিতুল হাকিম


আগামী নিউজ প্রকাশিত: জুন ২৪, ২০২০, ০৭:৩৬ পিএম
একজন মানবপ্রেমী ও সফল নেতা মিতুল হাকিম

মিতুল হাকিম

সারা বাংলাদেশে যখন করোনার ছড়াছড়ি তখন রাজবাড়ী-২ আসনের সকল উপজেলার মানুষের ঘরে ঘরে রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জিল্লুল হাকিমের পুত্র রাজবাড়ী জেলা আওয়ামীলীগের অন্যতম সদস্য আশিকুর রহমান মিতুল হাকিম।

রাজবাড়ী-২ আসনের অন্তর্গত পাংশা, কালুখালী, বালিয়াকান্দির মানুষের ভরসার অন্যতম নাম এখন মিতুল হাকিম। উপজেলা থেকে ইউনিয়ন, ইউনিয়ন থেকে গ্রাম, গ্রাম থেকে প্রতিটা মানুষের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে খোঁজ নিচ্ছেন মিতুল হাকিম।

বর্তমান করোনাকালীন সময়ে পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা জিল্লুল হাকিম এমপির নির্দেশে সেবক হয়ে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন মিতুল হাকিম। মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে সকলের কথা শুনছেন, দিচ্ছেন আশ্বাস, করছেন নিজের সর্বোচ্চ।

আশিক মাহমুদ মিতুল দেশের বর্তমান পরিস্থিতি মোকাবিলায় পিতার নির্দেশে এলাকায় অবস্থান করছেন দীর্ঘদিন। এলাকায় অবস্থান করে তিনি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে কর্মহীন মানুষের মাঝে তালিকা করে নগদ টাকা, খাদ্য সামগ্রী, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান প্রভৃতি বিতরণ করেন।

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় পুলিশসহ সাংবাদিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা চিন্তা করে রাজবাড়ী জেলা পুলিশ ও রাজবাড়ীতে কর্মরত সাংবাদিকদের মাঝে পিপিই, মাস্ক, গ্লাভসসহ অন্যান্য স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করেছেন।

সচেতনতা বাড়াতে প্রতিটা ইউনিয়নে গঠন করছেন স্বেচ্ছাসেবক টিম। বাজারে ঢুকতে যাদের মাস্ক নেই দেওয়া হচ্ছে তাদের বিনামূল্যে মাস্ক। অসহায় পরিবারের শিশুদের কথা চিন্তা করে শিশুদের পুষ্টি সমৃদ্ধ খাদ্য বিতরণ করেন।

করোনা ভাইরাসের কারণে তিনি পাংশা-কালুখালী ও বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসকদের মাঝে পিপিই, এন-৯৫ মাস্ক, গগলস সহ অন্যান্য স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম প্রদান করেন।

করোনাক্রান্ত সাংবাদিক পরিবারের পাশেও দাঁড়ান এই আওয়ামী লীগ নেতা। করেন নগদ অর্থ প্রদান সাথে খাদ্যদ্রব্য।

এমপি পুত্র মিতুল হাকিমের প্রদানকৃত ঔষধ ও লজিস্টিক সাপোর্টে কালুখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ইতিমধ্যে ৫ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। আরও যেসকল রোগী ভর্তি রয়েছে তারাও সুস্থ প্রায় সুস্থ।

ডেঙ্গুর প্রকোপ কমাতে গত ৩০ মে মশক নিধন অভিযানের উদ্বোধন করেন এমপি পুত্র মিতুল হাকিম। ২টি ফগার মেশিন দিয়ে পাংশা পৌর এলাকায় এ কার্যক্রম চলছে। জীবানুনাশক স্প্রে মেশিন দিয়ে ঔষধ স্প্রে করা হচ্ছে। কর্মহীন মানুষের ঘরের খাদ্য থেকে শুরু করে ওষুধ কেনা সবই চালাচ্ছেন নিজের ব্যক্তিগত অর্থে।

মানুষের মুখে মুখে এখন আওয়ামী লীগ নেতা মিতুল হাকিমের জয়ধ্বনি। গ্রাম থেকে প্রত্যন্ত অঞ্চলে শোনা যায় এই রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের নাম। সকলের নয়নের মনি হয়ে উঠেছেন তিনি। নেতাকর্মীদের কাছে হয়ে উঠেছেন অধিক জনপ্রিয়।

রাজবাড়ী-২ আসনের সমস্ত দায়িত্ব যেন নিজের  কাঁধে তুলে নিয়েছে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জিল্লুল হাকিমের যোগ্য উত্তরসূরী মিতুল হাকিম। মিতুল হাকিম এলাকার মানুষের নিয়মিত খোঁজ-খবর নিচ্ছেন। ঘরে ঘরে পৌঁছে দিচ্ছেন খাবার।

পাংশা-কালুখালী-বালিয়াকান্দি উপজেলায় যেসব পরিবারে সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তাদের পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তাসহ সবধরণের সুযোগ-সুবিধা প্রদানের ব্যবস্থা করেছেন তিনি।

সে যেন মানুষের আগামীর নেতা। দিন নেই রাত নেই চষে বেড়াচ্ছেন শহর থেকে গ্রামে। মফস্বলের মানুষের যেন বহু পরিচিত মুখ মিতুল ভাই।

মিতুল হাকিম যেমন সাধারণ মানুষের পাশে সর্বক্ষণ রয়েছে তেমনি রয়েছে সকল নেতা-কর্মীদের পাশে। মাঠকর্মীদের কাছে একজন অভিভাবক হয়ে উঠেছেন তিনি।

আগামীনিউজ/জেএফএস

Dr. Neem