Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

বাফুফে নির্বাচন: ভোটারের মন জয়ের চেষ্টা


আগামী নিউজ | ডেস্ক রিপোর্ট প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০, ০১:২৭ পিএম
বাফুফে নির্বাচন: ভোটারের মন জয়ের চেষ্টা

ফাইল ছবি

ঢাকাঃ বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) আগামী ৩ অক্টোবরের নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রার্থীরা যার যার মতো প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। মতবিনিময় চলছে ভোটার বা কাউন্সিলরদের সঙ্গেও। কাজী মো. সালাউদ্দিনের নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত পরিষদ এবং শেখ মোহাম্মদ আসলামের নেতৃত্বাধীন সমন্বিত পরিষদ এখন নানাভাবে ভোটারদের মন জয় করার চেষ্টা করছে।

কাজী মো. সালাউদ্দিন বিরোধীরা ইতোমধ্যেই দেশের কয়েকটি বিভাগে গিয়ে প্রচারণা চালিয়েছে। তবে ইশতেহার ঘোষণার পর থেকে সম্মিলিত পরিষদ ঢাকাতেই তাদের নির্বাচনী প্রচারণা করছে। সম্প্রতি প্যানপ্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে ক্লাবের ভোটারদের সঙ্গে বসেছিলেন কাজী সালাউদ্দিন-সালাম মুর্শেদীরা। গতকাল বসেছেন জেলার ভোটারদের সঙ্গে। শেখ মোহাম্মদ আসলাম তার প্যানেলের সবাইকে নিয়ে আলোচনায় বসেছেন। গতকাল সম্মিলিত পরিষদের প্যানেল পরিচিতি ও ইশতেহার ঘোষণার কথা থাকলেও তা হয়নি। সিনিয়র সহসভাপতি প্রার্থী শেখ মোহাম্মদ আসলাম জানিয়েছেন, তারা ১ অক্টোবর প্যানেল পরিচিতি ও নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করবেন।

নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে সম্মিলিত পরিষদ এবং সমন্বিত পরিষদের সদস্যদের ব্যস্ততা তত বাড়ছে। ভোটারদের মন জয়ে সচেষ্ট দুপক্ষই। সভাপতি পদপ্রার্থী সাবেক ফুটবলার সফিকুল ইসলাম মানিক বাফুফের সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিনের বিপক্ষে জয় পেতে আশাবাদী। তার বিশ্বাস এবার ভোটাররা তাকে নির্বাচিত করবে। ভোটাররা পরিবর্তনের পক্ষে।

এদিকে ভোট সামনে রেখে দুই পক্ষের মধ্যে কিছুটা কাদা ছোড়াছুড়ি শুরু হওয়ায় নির্বাচন কমিশন বাফুফে ভবনকে নির্বাচনী প্রচারণামুক্ত এলাকা হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে।

দুদিন আগে কাজী মো. সালাউদ্দিনের নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত পরিষদের সিনিয়র সহসভাপতি প্রার্থী আবদুস সালাম মুর্শেদী বিভিন্ন লিগের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেয়ার সময় তার প্রতিপক্ষ প্রার্থী সম্পর্কে কিছু কথা বলেছিলেন যা নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ বলে অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি নির্বাচন কমিশন পর্যন্ত পৌঁছালে গতকাল তারা একটি নোটিস ইস্যু করেছে। যেখানে বাফুফে ভবনে কোনো প্রকার নির্বাচনী প্রচারণা না করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে সব প্রার্থীকে।

নির্বাচনকে শতভাগ নিরপেক্ষ এবং বিতর্কমুক্ত রাখতে কমিশন এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কমিশন পরশু নির্বাচনের ভেন্যু প্যানপ্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেল পরিদর্শন করেছে। ওই সময় কমিশন প্রধান মেজবাহ উদ্দিন বলেছেন, ‘নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ হয় এমন কোনো কার্যকলাপ না করতে আমরা সব প্রার্থীকে অনুরোধ জানাচ্ছি। এমন কিছু ঘটলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

প্রধান নির্বাচন কমিশনার মেজবাহ উদ্দিন স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বলা হয়েছে, বাফুফের নির্বাচনী বিধিমালা ৭.৭ ধারা অনুযায়ী নির্বাচন প্রচারণা সংক্রান্ত বিধিমালা লঙ্ঘন করলেই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে। ফলে এই বিধি প্রার্থী- ভোটারসহ সবাইকে মেনে নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে অনুরোধ করা হয়েছে।

আগামীনিউজ/এএইচ