জেলে গিয়ে দেখুন অনেক র‌্যাব-পুলিশ সদস্য জেল খাটছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


আগামী নিউজ | নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: অক্টোবর ২, ২০২২, ০৩:০৫ পিএম
জেলে গিয়ে দেখুন অনেক র‌্যাব-পুলিশ সদস্য জেল খাটছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ফাইল ছবি

ঢাকাঃ র‌্যাব-পুলিশে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করলে কেউ পার পাচ্ছে না উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, ‘র‌্যাব-পুলিশ যেই হোক, শাস্তিযোগ্য অপরাধ করলে তারা কিন্তু শাস্তির বাইরে যায়নি।’

রোববার (২ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর হোটেল প্যান প্যাসেফিক সোনারগাঁও-এ মানবপাচার নিয়ে এক গবেষণা প্রতিবেদন উন্মোচন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

সংস্কার ও জবাবদিহিতার ক্ষেত্রে সরকারের অবস্থান কী জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, র‌্যাব যখন তৈরি হয় তাদের প্রশিক্ষণও দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। কাজেই আমরা মনে করি র‌্যাবে যদি কোনও ভুলভ্রান্তি হয়ে থাকে, তা দেখবো। যারাই অন্যায় করছে র‌্যাব কিংবা পুলিশ, শাস্তিযোগ্য অপরাধ করলে কেউ শাস্তির বাইরে যায়নি। 

তিনি বলেন, জেলে গিয়ে দেখুন অনেক পুলিশ ও র‌্যাব সদস্য জেল খাটছে। আমরা কাউকে ছাড় দিচ্ছি না। যুক্তরাষ্ট্র যে সংস্কারের কথা বলছে আমরা সবসময় সেটা করছি। আমরা র‌্যাব আধুনিকায়ন করছি, যেটা প্রয়োজন সেটাই করছি।

তিনি বলেন, র‌্যাব সংস্কারের মধ্যেই আছে। র‌্যাবের কেউ অপরাধে যুক্ত হলে তার ক্ষেত্রেও আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, র‌্যাব একটি এলিট ফোর্স। তাদের কিছু বিশেষ দায়িত্ব আমরা দিয়ে থাকি সময় সময়। র‌্যাব নীতিমালা অনুযায়ী কাজ করে। যদি কেউ ভুল কাজ করে থাকেন, আমাদের কাছে যেসব প্রতিবেদন আসছে, সেগুলো আমরা স্টাডি করছি। ব্যক্তিগতভাবে কারও সম্পৃক্ততা যদি থাকে সেগুলো আমরা দেখছি। যুক্তরাষ্ট্র রিপোর্ট যা দিয়েছে, আমরা চেক করে দেখছি। কোনও ভুলভ্রান্তি থাকলে অবশ্যই দেখবো।

উল্লেখ্য, এর আগে শনিবার র‌্যাবের নবনিযুক্ত মহাপরিচালক (ডিজি) এম খুরশীদ হোসেন বলেন, র‌্যাবে সংস্কারের কোনও প্রশ্নই আসে না। কারণ আমরা আইনের বাইরে কোনও কাজ করি না। র‌্যাব পরিচালনার জন্য বিধি-বিধান আছে। সেভাবেই র‌্যাব পরিচালিত হয়।

র‌্যাব সংস্কারের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের পরামর্শের বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে তিনি আরও বলেন, আমরা আইনের বাইরে কোনও কাজ করি না। আমরা কোনও সংস্কারের প্রস্তাব যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাইনি।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর র‌্যাবের ডিজি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন এম খুরশীদ হোসেন।

এমবুইউ