‘যেখানে প্রয়োজন হয় সেখানেই শক্তি প্রয়োগ করে র‌্যাব’


আগামী নিউজ | নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২২, ০১:২৭ পিএম
‘যেখানে প্রয়োজন হয় সেখানেই শক্তি প্রয়োগ করে র‌্যাব’

ঢাকাঃ যেখানে প্রয়োজন হয় সেখানে র‌্যাব শক্তি প্রয়োগ করে বলে জানিয়েছেন এলিট ফোর্সটির বিদায়ী মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন।‌

তিনি বলেছেন, যেখানে প্রয়োজন হয় সেখানে আমরা শক্তি প্রয়োগ করি। যেখানে প্রয়োজন হয় না সেখানে আমরা বিন্দুমাত্র শক্তি প্রয়োগ করি না। বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন তোমরা এদেশের পুলিশ। তোমরা দেশের নাগরিক। পরিস্থিতির কারণে যখন আমরা আক্রান্ত হই তখন যতটুকু থেকে ক্ষমতা দেওয়া আছে তার বিন্দুমাত্র লিমিট ক্রস করি না।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজধানীর কারওয়ানবাজারের মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় র‌্যাবের বিদায়ী মহাপরিচালক এসব কথা বলেন।

স্যাংশনের কারণে বন্দুকযুদ্ধ কিংবা ক্রসফায়ারে মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমরা তা মনে করি না। বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন তোমরা এদেশের পুলিশ, এদেশেরই নাগরিক। আমাদের দেশের মানুষের বিরুদ্ধে কেন আমরা দাঁড়াব। যখন আমরা আক্রান্ত হই, মাদক, অস্ত্র উদ্ধার, মানবপাচারকারী যখন আমাদের উপর আক্রমণ করে তখন আমরা প্রচলিত আইন অনুযায়ী যে ব্যবস্থা নিয়ে থাকি। আইনে যে ক্ষমতা র‌্যাবকে দিয়েছে তা আমরা ক্রস করি না।

আরেক প্রশ্নের উত্তরে র‌্যাবের বিদায়ী ডিজি বলেন, যেখানে যেটুকু প্রয়োজন সেটুকুই আমরা শক্তি প্রয়োগ করি। একটা লোক দৌড় দিল, ধাক্কা দিল আর গুলি করে দিতে হবে? পরিস্থিতি যে ডিমান্ড করে সে অনুযায়ী আমরা ব্যবস্থা নিয়ে থাকি। আমাদের দেশে প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিয়ে থাকি। 

মাদকের অভিযান নিয়ে করা প্রশ্নের জবাবে আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমি বলব মাদকের বিরুদ্ধে আমরা যেভাবে অভিযান চালিয়েছি আপনারা দেখেছেন। আমরা যে যুদ্ধ করছি এটা কিন্তু বৈশ্বিক যুদ্ধ। সারা বিশ্বজুড়ে কিন্তু এই মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ চলছে। আপনারা জেলখানায় যাবেন দেখবেন, সেখানে কী পরিমাণ আসামি আছে। সেখানে অধিকাংশ আসামি কিন্তু মাদকের। প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। আমরা যেখানেই মাদকের খবর পাচ্ছি সেখানেই সাঁড়াশি অভিযান চালাচ্ছি। গত পরশুদিনও আমরা দুই লাখ ৪৭ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করেছি। আপনারা দেখেছেন যে আমরা বড় বড় ইয়াবা ও আইসের চালান ধরেছি। মাদকের বিরুদ্ধে আমরা সবাই সচেতন হব এবং দায়িত্বশীল হব।

মাদকের বিরুদ্ধে সবাইকে সোচ্চার হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমার সন্তান কোথায় যাচ্ছে, বাইরে কার সঙ্গে মিশছে, এটি খেয়াল করার দায়িত্ব আমারও আছে। শিক্ষকের দায়িত্ব আছে। পাড়া-প্রতিবেশীর দায়িত্ব আছে। আমরা সকলেই কাজ করছি এবং গণসচেতনতামূলক প্রোগ্রাম নিয়েছি। আপনারা জানেন ডিমান্ড এন্ড সাপ্লাই একটা আরেকটা সঙ্গে জড়িত।

‘আমরা কাজ করছি। তবে মাদক নিয়ন্ত্রণে নেই এটা বলার সুযোগ নেই। যারা মাদক ব্যবসা করে তারা কিন্তু লুকিয়ে লুকিয়ে করে। যেখানেই খবর পাচ্ছি সেখানে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। ‌‌ জেলখানাতে খবর নেবেন সেখানে কত শতাংশ আসামি মাদকের আসামি। আমরা যদি ব্যবস্থা না নিতাম তাহলে জেলখানায় এত পরিমাণ আসামি কীভাবে এলো। সবাই মিলে এই আন্দোলনে সম্পৃক্ত হতে হবে। আমরা সকলে মিলে কাজ করে সোচ্চার হলে মাদক মুক্ত সমাজ করতে পারব।-বলেন আবদুল্লাহ আল মামুন।

এমবুইউ