Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

এই শিকল পরা ছল (প্রথম পর্ব)


আগামী নিউজ | প্রনমি বোস প্রকাশিত: জুন ২২, ২০২০, ০১:২৯ পিএম
এই শিকল পরা ছল (প্রথম পর্ব)

প্রতিকী ছবি

এই শিকল পরা ছল (প্রথম পর্ব)

ভোর ৫ টা ৩০মিনিট!!
বাইরে কাক রাজ তার কা কা স্বরে নতুন সকালের আগমনী বার্তা দিচ্ছে! বাগানের বেলী ফুলের সুবাস চারদিক মৌ মৌ করছে!!
মাথার উপর ঘুরতে থাকা ফ্যানটার দিকে অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকে নীরু!সারা রাত ঘুমাতে পারেনি!এক ভয়ংকর আর্ত্মনাদ যেন তাকে তাড়া করে বেড়ায় সবসময়, বিছানা থেকে উঠে জানালার পাশে এসে দাঁড়ায় সে!এক মুহুর্তের জন্য মনে হয় ভোর হওয়া থেকে সুন্দর বোধ হয় আর কিছুই হতে পারে না!!যদি ভোরের এই স্নিগ্ধ আলোর মত তার জীবনটাও আবার কেউ রাঙ্গিয়ে দিত!!দীর্ঘশ্বাস ফেলে সে.....
জানালায় বসা কাকটা ডানা ঝাপটে উড়ে গেল..

সময় ঘনিয়ে এসেছে।ইন্সপেক্টর স্যার উকিল আঙ্কেল সহ তার বয়ান নিতে বসে আছে ,, সে নিশ্চুপ,বরাবরের মত মাটির দিকে তাকিয়ে! চোখে যেন কি এক ক্ষোভ!আজ ও তারা বয়ান নিতে ব্যর্থ!কি হয়েছিল এক বছর আগে, যা মেয়েটাকে নির্বাক অনুভূতিশূণ্য করে দিল! চারদেয়ালে বন্দী করে দিল।

রেজিস্টার ম্যাম ইন্সপেক্টর স্যার কে বললো, "স্যার তাকে আরো কিছুদিন সময় দেয়া দরকার, আমরা তাকে সর্বক্ষন পর্যবেক্ষণে রাখছি, সে নিজ থেকে বলতে না চাইলে আমরা কিছুই করতে পারব না!!

আজ এক বছর ধরে"আলো মেন্টাল হেলথ কেয়ারে" চিকিৎসাধীন নীরু।নীরুর পুরো নাম নিরুপমা দেবী! এখানকার সবাই তাকে খুব দেখতে পারে। তবে সবচেয়ে বেশি যে দেখতে পারে সে হল। বিনি। বিনি তার চেয়ে ২ বছরের ছোট! পরিবারের আর্থিক অবস্থা শোচনীয় হওয়ায় কয়েক পয়সার বিনিময়ে সে এই হেলথ কেয়ারে চা পানি এনে দেয়ার কাজ করে। নীরু কে খুব পছন্দ করে সে!

জানালার পাশে এসে নীরুকে ডেকে বলে, "আফা কি করেন?আজ আফনেরে সুন্দর লাইগছে খুব!আফনের লাইগা চাঁপা ফুল আইনছি আইজ!
হঠাৎ চমকে উঠে নীরু!আচ্ছা চাঁপা ফুল নীরুর প্রিয় তা বিনি কিভাবে জানলো? নিজের অজান্তেই বিনির দিকে হাত বাড়িয়ে দেয় নীরু!ফুলগুলো নীরুর হাতে দিয়ে বিনি গান গাইতে গাইতে চলে যায়।
আমার হাত বান্ধিবি, পা বান্ধিবী,মন বান্ধিবী কেমনে?
কি সুরেলা কন্ঠ!কি এক মায়া!মুগ্ধ হয়ে বিনির গান শুনে নীরু!
বিনির সাথে তার সখ্যতা দিন দিন বেড়েই চলে। বাগানে হাঁটতে যায়,বিনির গান শুনে।বিনি যেন তার মায়ের পেটের বোন...

দুদিন পর।।
রাত ১০টা।
বাইরে ঝুম বৃষ্টি!টিনের চালে ঝনঝন শব্দ আর বজ্রপাতে চারদিক কেমন ভুতুড়ে পরিবেশ মনে হচ্ছে! হঠাৎ জানালায় কে যেন টোকা দেয়, চমকে উঠে নীরু!

এ কি! বিনি ভিজে একাকার! হাতে একটা টিফিন বক্স!
"আফা আপনের লাইগা মায় খিঁচুড়ি পাঠায়ছে" খাঁড়ান আমি ভিতরে আইয়া লই!
ভিতরে এসেই পলিথিনে মুড়ে রাখা গামছা বের করে ভেজা শরীর মুছে নেয়!তারপর নিরুকে বলে,"আফা জলদি খাইয়া লন,রেইস্টার আফা থাইক্যা বহুত কষ্ট কইরা অনুমতি লইয়া আইছি! সময় ১০ মিনিট!

নিরুর চোখে জল আসে।
"আহা, আবার কান্দে মেয়েটা! আপ্নেরে না কইছি হাসলে আপ্নেরে রিয়াজের পূর্নিমার লাহান মনে হয়! এভাবে শাবানার লাহান কাইন্দলে অইবো???আজকে আমিই খাওয়াইয়া দি আপনেরে!!
বিনির এমন কথায় না হেসে পারে না নিরু! বাংলা সিনেমা দেখে মেয়েটা দিনদিন এমন সিনেমাখোর হচ্ছে না!

নিরুর মুখে ভাত তুলে দিয়ে বিনি বলে,
"আফা কি আইশ্চর্য, না? আফনেরে চিনি না জানি না, অথচ আফনে কত্ত আপন আমার! ভয় লাগে যদি আফনেরে হারাইয়া ফেলি! তবে আপনি সুস্থ হইয়া আপনের মা বাপের কাছে ফিইরা যান এইডাই দোয়া করি।
ছোট্ট মেয়েটার কি পাকা পাকা কথা! নিরুও বিনিকে ছাড়া একটা দিন ও ভাবতে পারে না!
"আচ্ছা আফা এহন যাই, কাইল আবার আসুম! হুনেন দরজা জানলায় ভালা কইরা খিল আঁইটবেন! দারোয়ান মফিজের নজর আমার সুবিধার মনে অয় না!তার মতলব আমার ভালো ঠেকবার পারে না!"
এসব কি বলছে বিনি! অবশ্য আগেও কয়েকজনের মুখে শুনেছে সে এসব!কিন্তু প্রমাণ না থাকায় কিছু করা গেল না!

বিনিকে বিদায় দিয়ে নিরু শুয়ে পড়ে।মনটা কেমন যেন অজানা ভয়ে আতকে উঠে। ছটফট করতে থাকে সে!কিছু হবে না তো বিনির?ভয়ে গা শিউরে উঠে!বিছানায় এপাশ ওপাশ করতে থাকে! অস্থির হয়ে উঠে!
রুম থেকে বেড়িয়ে আসে নিরু, বিনি কি সত্যিই বাসায় চলে গেল?নিরু ছুটে গেল ম্যামের কাছে, কিছু বলতে পারলো না, মুখ দিয়ে আওয়াজ বের হয় না তার! শুধু অস্ফুট স্বরে বলে উঠলো,"বি...বি....বিনি!"
"কি হয়েছে বিনির?সে তো তোমাকে খাবার দিতে গেল! এমন করছো কেন তুমি?তোমার রুমে গেল না সে?চলে যায় নি সে এখনো?

এখনো যায় নি মানে? মাথায় যেন বাজ পড়লো!কি বলছে ম্যাম এসব! বিনি যায় নি মানে! বিনি কোথায়? কান্না পায় নিরুর! পাগলের মত হণ্যে হয়ে খুঁজতে থাকে বিনিকে!
ঝড় বাদলের রাতে বিদ্যুৎ টাও চলে গেল! টেবিলে একটা অর্ধমৃত টর্চ লাইট খুঁজে পায় নিরু! কোথায় গেল বিনি?কিছু হয় নি তো? হাজার প্রশ্ন যেন নিরুকে তাড়া করে বেড়ায়! সবখানে খুঁজতে থাকে! 

হঠাৎ সিঁড়ির নিচে ফিসফিস শব্দ! কান পেতে শুনার চেষ্টা করে নিরু!" কে?কে........ কে..... ওখানে?
ভয়ার্ত কন্ঠে চিৎকার দেয় নিরু! ভয়ে গলা দিয়ে স্বর বের হচ্ছিলো না!কপালে বিন্দু বিন্দু ঘাম! ওড়না দিয়ে ঘাম মোছে নিরু! অন্ধকারে কিছুই দেখতে পায় না!নিঃশব্দে সর্তকতার সাথে এক পা দু পা করে এগোতে থাকে।বাইরে ঝড়ের তান্ডবলীলা বেড়েই চলেছে! সব যেন ছাড়খার করে দিবে আজ!!ঠান্ডা বাতাসে গা শিউরে উঠে তার!
হঠাৎ শেয়ালের ভয়ংকর আর্তনাদ! চমকে উঠে নিরু। বিনির জন্য তার চিন্তা বেড়েই চলে!
পা দিয়ে ঠান্ডা নরম কি একটা যেন লাফিয়ে যায়!ভয়ে নিরু জড়োসড়ো হয়ে দু পা পিছিয়ে আসে! টর্চের আলো ও নিভুপ্রায়! তাও আবছা আলোতে দেখার চেষ্টা করলো নিরু!এক জোড়া চোখ জ্বল জ্বল করছে! কাছে গিয়ে দেখলো একটা ব্যাঙ তার দিকে এক দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে! থমথম খেয়ে যায় নিরু!

কি করবে সে? ম্যামকে সব কিছু খুলে বলবে কি? কেউ কি বিশ্বাস করবে তার কথা? কেনই বা করবে? সত্যিই কি বিনির কিছু হলো? নাকি সে খামোখায় এত ভয় পাচ্ছে!

না! আরেকবার খুঁজে দেখা যাক হয়ত কোথাও এক কোনে বসে আছে! নিজেকে বোঝায় নিরু।
কিন্তু একটু আগে যে ফিসফিস শব্দ হঠাৎ কেমন নিরব, সব কি তবে নিরুর মনের ভুল?হয়ত।

নিরু হলের দিকে এগোতে থাকে!আবার সেই গোঙ্গানির শব্দ!কারো মুখ যেন খুব শক্তভাবে চেপে আছে কেউ!
কাঁপা কাঁপা কন্ঠে জিজ্ঞেস করে নিরু,"কে...... কে?"
এবার ও কোন সাড়া পেল না....

টর্চের আলোতে চারদিক টা একবার দেখে সে!কিছু একটা গন্ডগোল আছেই! সন্দেহ হয়.......

(চলবে)......

আগামীনিউজ/জেএস 
 

Dr. Neem