Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

শারীরিক উপস্থিতিতে আপিল বিভাগে বিচারকাজ শুরু


আগামী নিউজ | আদালত ডেস্ক প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১, ২০২১, ১০:২৮ এএম
শারীরিক উপস্থিতিতে আপিল বিভাগে বিচারকাজ শুরু

ফাইল ছবি

ঢাকাঃ এক বছর ৮ মাস পর (২০ মাস) সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের এজলাসে বিচারক ও আইনজীবীদের শারীরিক উপস্থিতিতে বিচারকাজ শুরু হয়েছে। 

বুধবার (১ ডিসেম্বর) সকাল নয়টার দিকে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বেঞ্চে এ বিচারকাজ শুরু হয়। 

করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রেক্ষাপটে ২০২০ সালের মার্চের শেষদিকে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির সঙ্গে মিল রেখে দেশের সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগের বিচার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। বেশ কিছুদিন আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকার পর তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে বিচারকাজ চালিয়ে নিতে ওই বছরের ৯ মে এ বিষয়ে অধ্যাদেশ জারি হয়। এরপর সুপ্রিম কোর্ট ডিজিটাল মাধ্যমে ভার্চুয়ালি বিচার কার্যক্রম পরিচালনা করতে প্র্যাকটিস নির্দেশনা জারি করলে ১১ মে দেশের বিচার বিভাগের ইতিহাসে প্রথমবার ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে এলে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করে অধস্তন আদালতের বিচার কার্যক্রম শুরু হলেও হাইকোর্টে ভার্চুয়ালি বিচারকাজ চলছিল। কয়েকটি বেঞ্চে শারীরিক উপস্থিতিতে বিচারকাজ চলে। একই সঙ্গে আপিল বিভাগেও ভার্চুয়ালি বিচারকাজ চলে।

চলতি বছর করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ফের বেড়ে গেলে গত ৫ এপ্রিল থেকে মানুষের চলাচলে সরকার ঘোষিত নিষেধাজ্ঞা শুরু হয়। এরপর প্রধান বিচারপতির নির্দেশক্রমে ফের সীমিত পরিসরে চেম্বার আদালত ও হাইকোর্ট বিভাগে ভার্চুয়ালি বিচারকাজ শুরু হয়। এরপর পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে হাইকোর্টের বেঞ্চ সংখ্যা পর্যায়ক্রমে বাড়ানো হয়। করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে এলে হাইকোর্টে ভার্চুয়াল আদালতের পাশাপাশি শারীরিক উপস্থিতিতে কয়েকটি বেঞ্চে বিচারকাজ চলে। আপিল বিভাগে ভার্চুয়ালি বিচারকাজ চলে আসছিল।

এ অবস্থায় সুপ্রিম কোর্টে পুরোপুরিভাবে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে অনুসরণ করে শারীরিক উপস্থিতিতে বিচারকাজ পরিচালনার জন্য ২৯ নভেম্বর একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, উপর্যুক্ত বিষয়ে নির্দেশিত হয়ে জানানো যাচ্ছে যে, ‘জ্যেষ্ঠ বিচারপতিদের সঙ্গে আলোচনা করে প্রধান বিচারপতি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন যে আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে অনুসরণ করে শারীরিক উপস্থিতিতে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগের বিচারিক কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

এর মাধ্যমে ২০ মাস পর শারীরিক উপস্থিতিতে আপিল বিভাগে বিচারকাজ শুরু হলো।

আগামীনিউজ/বুরহান