Agaminews
August

মুন্ডী/ছাগলনাদী


আগামী নিউজ | ডঃ নিম হাকিম প্রকাশিত: জুন ২৭, ২০২১, ১২:৪৯ পিএম
মুন্ডী/ছাগলনাদী

ছবি: সংগৃহীত

পরিচিতিঃ (Botanical Name: Sphaeranthus Indians Linn., Common Name: Chagol Nadi, Mundi, English Name: Globe-thistle, Family: Compositae)

মুন্ডী/ছাগলনাদী ছোট আকৃতির বীরুৎ জাতীয় উদ্ভিদ। দেশের প্রায় জায়গায় এটি ধান বা কালাই ক্ষেতে জন্মে। সাধারণত ১২ ইঞ্চির মত উঁচু হয়ে থাকে। শাখাগুলি বিস্তৃত, পাতার কিনারা করাতের ন্যায় খাঁজকাটা। কান্ড গোলাকার। পাতা ডিম্বাকৃতি, উভয়দিকে লোমযুক্ত, বোটা ছোট। ফুল বেগুনী রঙের, ফল মসৃণ। শীত গ্রীষ্ম উভয় ঋতুতেই ফুল ও ফল হয়। ভারত ও মালেশিয়া এর আদি বাসস্থান।

প্রাপ্তিস্থানঃ দেশের সব জায়গায় এটি জন্মে তবে ঢাকা ও রাজশাহীতে বেশী জন্মে।

চাষাবাদঃ বীজ থেকে বংশ বৃদ্ধি হয়।

লাগানোর দূরত্বঃ ৬ ইঞ্চি। ধান গমের মত ক্ষেতে ছিটিয়ে বুনা যায়।

উপযোগী মাটিঃ সব ধরনের মাটিতে এটি জন্মে থাকে তবে বেলে বা দোআঁশ মাটিতে বেশী জন্মে।

বীজ আহরণঃ এপ্রিল-মে মাসে বীজ আহরণ করা যায়।

প্রতি কেজিতে বীজের পরিমাণঃ লক্ষাধিক।

প্রক্রিয়াজাতকরণ/সংরক্ষণঃ বীজ সংগ্রহ করে ভালভাবে রোদে শুকিয়ে শুষ্ক স্থানে বেশ কিছুদিন সংরক্ষণ করা যায়।

ব্যবহার্য অংশঃ ফুল, পাতা, মূল ও ফল।

উপকারিতাঃ বীজ ও শিকড় কৃমিনাশক। শিকড়ের ছাল ঘোলের সাথে খেলে অর্শরোগ সেরে যায়। ছাগলনাদীর রস  প্রতিদিন খেলে চুল পড়া বন্ধ হয় ও চুল  দেরীতে পাকে। এর ফুল স্নিগ্ধকর, বলকারক ও জ্বরনাশক। তাছাড়াও এর রস দৃষ্টিশক্তি ও শ্রবণশক্তি বৃদ্ধি করে।

কোন অংশ কিভাবে ব্যবহৃত হয়ঃ

  • প্রোস্টেট গ্লান্ডের বৃদ্ধিতে এর ফুলের গুঁড়া ৫-৭ গ্রাম এক কাপ ফুটন্ত পানিতে মিশিয়ে ছেঁকে নিয়ে নির্যাসটুকু দিনে দুইবার খেলে উপকার পাওয়া যায়।
  • স্নায়ুবিক দুর্বলতা এর পাতা ২-৩ গ্রাম এক কাপ ফুটন্ত পানিতে মিশিয়ে ছেঁকে নিয়ে দিনে দুইবার খেতে হবে।
  • পাকস্থলী দুর্বলতা ৩-৫ গ্রাম ছাগলনাদী মূলের গূড়া মধুসহ দিনে দুইবার খেতে হবে।
  • রক্ত-অর্শে এর মূল বেটে আক্রান্ত স্থানে দিনে ২ বার প্রলেপ দিতে হবে।
  • চর্মরোগে এর মূলের গূড়া ৩-৫ গ্রাম পরিমাণে প্রত্যেক দিন ২ বার পানিসহ খেতে হবে।
  • রক্ত পড়া বন্ধ করার জন্য ছাগলনাদী পাতার রস প্রয়োজনীয় পরিমাণে আক্রান্ত স্থানে প্রলেপ দিতে হবে।

পরিপক্ক হওয়ার সময়কালঃ সাধারণত ৪ থেকে ৫ মাসে পরিপক্ক হয়।

আয়ঃ প্রতি একর জমিতে বছরে ২৫,০০০ টাকা থেকে ৩০,০০০ টাকা আয় করা সম্ভব।