Dr. Neem on Daraz
Dr. Neem Hakim

আন্তর্জাতিক নার্স দিবস আজ


আগামী নিউজ | আগামী নিউজ প্রতিবেদক প্রকাশিত: মে ১২, ২০২২, ০৮:৪৬ এএম
আন্তর্জাতিক নার্স দিবস আজ

ঢাকাঃ আন্তর্জাতিক নার্স দিবস আজ (১২ মে)। আধুনিক নার্সিং পেশার রূপকার ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেলের জন্মদিন উপলক্ষে প্রতিবছর বিশ্বব্যাপী এ তারিখে আন্তর্জাতিক নার্স দিবস উদযাপন করা হয়। এ বছর নার্স দিবসের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনায় শক্তিশালী নার্স নেতৃত্বের বিকল্প নেই- বিশ্ব স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে নার্সিং খাতে বিনিয়োগ বাড়ান ও নার্সদের অধিকার সংরক্ষণ করুন।’ বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বাংলাদেশেও দিবসটি উদযাপন করা হবে।

নার্স দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় মহাখালীতে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অডিটরিয়ামে এক আলোচনা সভা ও সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

এছাড়াও নার্সেস সেফটি অ্যান্ড রাইটস (এসএনএসআর) ও বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএনএ) নানা আয়োজন হাতে নিয়েছে। আগে ঢাকায় স্বল্প পরিসরে দিবসটি পালিত হলেও বর্তমানে সরকারি-বেসরকারি স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন ইনস্টিটিউশনে দিবসটি উদযাপন করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের মতে, বর্তমানে বাংলাদেশে রেজিস্টার্ড নার্স আছে ৭৬ হাজার ৫১৭ জন। আর মিডওয়াইফ আছেন ছয় হাজার ২৮৫ জন। এর মধ্যে সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কাজ করছেন ৪২ হাজারের বেশি নার্স ও মিডওয়াইফ। এছাড়াও বেসরকারিভাবে কাজ করছেন ৩০ হাজার।

উল্লেখ্য, ফ্লোরেন্স নাইটিংগেলের জন্ম ১৮২০ সালের ১২ মে ইতালির ফ্লোরেন্স শহরে। তিনি একাধারে অপূর্ব রূপসী, খুবই দয়ালু ও স্নেহপূর্ণ মনের অধিকারী ছিলেন। তাকে ইউরোপের অন্ধকারে আলোকবর্তিকা বলে আখ্যায়িত করা হয়। নাইটিংগেলে ক্রিমিয়ার যুদ্ধে অসুস্থ সৈন্যদের পাশে দাঁড়ানোর মাধ্যমে তিনি অমর হয়ে রয়েছেন। রাশিয়ার বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডের এই যুদ্ধে সৈন্যদের বিপন্ন অবস্থায় তৎকালীন প্রতিরক্ষা দফতরের সেক্রেটারি সিডনি হার্বাটের আহ্বানে সাড়া দিয়ে নিজ উদ্যোগে নার্সিংয়ের জন্য ৩৮ জনের স্বেচ্ছাসেবী দল নিয়ে যুদ্ধ ক্ষেত্রে ছুটে যান। যা আজো নার্সিং সেবার এক অনন্য উদাহরণ হয়ে আছে।

মানবসেবায় তার এই অনন্য অবদানকে স্মরণ করে ১৯৬৫ সাল থেকে তার জন্মদিনে বিশ্বব্যাপী নার্স দিবস পালন করা হয়। তবে বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন ১৯৭৪ সাল থেকে দেশে দিবসটি উদযাপন করে আসছে।

এমএম