Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

এবারের এইচএসসিতে কমতে পারে বিষয়


আগামী নিউজ | নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: জুন ২৭, ২০২০, ১০:৩৫ পিএম
এবারের এইচএসসিতে কমতে পারে বিষয়

ফাইল ছবি

করোনা মহামরী কারণে স্থগিত থাকা এইচএসসি পরীক্ষা স্বল্প সময়ের মধ্যে করার জহন্য বিষয় সংখ্যা কমতে পারে। এ বিষয়ে সরকার চিন্তাভাবনা করছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

শনিবার (২৭ জুন) রাজধানীতে কর্মরত শিক্ষা বিটের সাংবাদিকদের সংগঠন এডুকেশন রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ (ইরাব) আয়োজিত ‘করোনায় শিক্ষার চ্যালেঞ্জ এবং উত্তরণে করণীয়’ শীর্ষক ভার্চুয়াল সেমিনারে এমন কথা বলেন মন্ত্রী।

তিনি বলেন, এ বছরের এইচএসসির সিলেবাস কমানোর কোনো যৌক্তিকতা নেই। কারণ তারা তো তাদের সিলেবাস সম্পন্ন করেছে। এখন হতে পারে যে, পাবলিক পরীক্ষা নেয়া হবে এবং এতো লাখ লাখ পরিবার, এতো আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, এতো প্রশাসনের মানুষ, এতো শিক্ষক- সবাইকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলব? তাহলে সেটি আমরা কম সময়ে করতে পারি কি-না? কম সংখ্যক পরীক্ষা নিতে পারি কি-না? আমরা সবকিছুই ভাবছি। কোনো বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।

উলে্লখ্য চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষা গত ১ এপ্রিল শুরু হওয়ার তারিখ নির্ধারিত ছিল। কিন্তু মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে তা অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে গেছে। পরীক্ষা কবে হবে, কিংবা আদৌ এ বছর অনুষ্ঠিত হবে কিনা সে বিষয়ে সংশয় রয়েছে।
এমন প্রেক্ষাপটে শিক্ষামন্ত্রী আজ (২৭ জুন) জানান, শিক্ষামন্ত্রণালয়ের এইচএসসি পরীক্ষা আয়োজনের চূড়ান্ত প্রস্তুতি রয়েছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে তা শুরু করা সম্ভব হয়নি। পরিস্থিতি অনুকূলে আসার ১৫ দিন পর এই পরীক্ষা নেয়া হবে। এই ১৫ দিন শিক্ষার্থীদের নোটিশ দিতে হবে। তাদের প্রস্তুতি ঝালিয়ে নিতে সময় দিতে হবে।

সিলেবাস কমানোর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কারিকুলাম বিশেষজ্ঞরা ইতোমধ্যেই সিলেবাস নিয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছেন। এই সপ্তাহের মধ্যেই আমরা বিষয়টি নিয়ে বসবো। প্রয়োজনীয় দক্ষতা ও শিখনফল যতটুকু অর্জন করা যায় ততটুকু নিয়ে সিলেবাস প্রণয়ন করার বিষয়ে পরিকল্পনা গ্রহণ করব। শিক্ষার্থীদের জীবন থেকে মূল্যবান সময় নষ্ট না করতে চলতি বছর ও আগামী বছর বার্ষিক সিলেবাস কিছুটা কমিয়ে আনা হবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও জানান, বর্তমান সংকট পুষিয়ে নিতে চলতি শিক্ষাবর্ষ আগামী মার্চ পর্যন্ত বাড়ানো হতে পারে। শিক্ষাবর্ষের ছুটি কমিয়ে শ্রেণি ঘণ্টা বাড়ানোর পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। তবে এ ক্ষেত্রে বয়স ও শ্রেণি অনুযায়ী শিক্ষার্থীর জ্ঞানার্জন ও দক্ষতা অর্জনের দিকটিতে আপস করা হবে না। যতটুকু না পড়ালে পরবর্তী ক্লাসে ওঠা সম্ভব না হয় সেটিকে গুরুত্ব দেয়া হবে।

সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন, গণস্বাক্ষরতা অভিযানের নির্বাহী পরিচালক রাশেদা কে চৌধুরী, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. মনজুর হোসেন এবং ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সহকারী অধ্যাপক ড. ফারহানা খানম।
আগামীনিউজ/মনির

Dr. Neem