Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

চাকরিচ্যুত পোশাক শ্রমিকরা জড়াচ্ছে অপরাধে


আগামী নিউজ | ডেস্ক রিপোর্ট প্রকাশিত: নভেম্বর ১৭, ২০২০, ০৪:৫৬ পিএম
চাকরিচ্যুত পোশাক শ্রমিকরা জড়াচ্ছে অপরাধে

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকাঃ বৈশ্বিক মহামারি করোনা পরিস্থিতিতে দেশের তৈরি পোশাক খাতের সহস্রাধিক কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বেকার হয়ে পড়েছে কয়েক লাখ শ্রমিক। যেখানে নারী শ্রমিকের পাশাপাশি পুরুষও রয়েছে। এছাড়া ছাঁটাই হয়েছে আরো কয়েক হাজার শ্রমিক। কাজ হারিয়ে দিশাহারা শ্রমিকদের অনেকে অভাব-অনটনের কারণে জড়িয়ে পড়ছে নানা অপরাধে। এসব নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছে সংশ্লিষ্ট এলাকার পুলিশ। তারা এ ব্যাপারে বিশেষভাবে সতর্ক রয়েছে বলে জানা গেছে।

ঢাকা, গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, গত কয়েক মাস ধরে একাধিক চুরি, ছিনতাই ও ডাকাতির ঘটনায় জড়িতদের আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে চাঞ্চল্যকর তথ্য মিলছে। আটককৃতদের অনেকে বন্ধ হওয়া পোশাক কারখানার বা চাকরিচ্যুত শ্রমিক বলে জানা গেছে। এছাড়া গাজীপুরে জঙ্গি তৎপরতায় জড়িত একটি চক্রও চাকরিচ্যুত পোশাক শ্রমিক বলে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে। তবে স্পর্শকাতর এ বিষয়ে কোনো পুলিশ কর্মকর্তা বিস্তারিত বলতে চাননি।

ঢাকার আশপাশের ৩টি জেলার গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা জানান, কাজের টানে গ্রাম থেকে শহরে আসা পোশাক শ্রমিকরা বেকার হওয়ার পর আর বাড়ি ফিরে যেতে পারছে না। পরিবার নিয়ে বিপাকে পড়া এসব শ্রমিক ঘর ভাড়া ও সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও সন্তানদের পড়ালেখার খরচ জোগানো দুষ্কর হয়ে পড়েছে। এর মধ্যে করোনার কারণে নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ কমেছে। বেগতিক পরিস্থিতিতে অপরাধ জগতে পা রাখছে অনেক বেকার শ্রমিক।

শিল্প পুলিশ-১ আশুলিয়া-সাভার অঞ্চলের পরিচালক সানা শামিনুর রহমান শামীম বলেছেন, শিল্প পুলিশ শুধু শিল্প কারখানার আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিষয় দেখভাল করে। কোনো কারখানায় গণ্ডগোলের খবর থাকলে বা পেলে পুলিশ তা নিরসনে কাজ করে।

পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এআইজি (মিডিয়া) সোহেল রানা বলেছেন, পোশাক খাতের সার্বিক বিষয় নিয়ে শিল্প পুলিশ কাজ করছে। শিল্প মালিকসহ সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা পেলে এ বিষয়ে অগ্রগতি দৃশ্যমান হবে।

এদিকে পোশাক রপ্তানিকারকদের সংগঠন বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচারাস এন্ড এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশন (বিজিএমই) ও বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স এন্ড এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশন (বিকিএমইএ) নেতারা একের পর এক কারখানা বন্ধ হওয়ায় উদ্বেগ জানিয়েছেন। বিজিএমইএ পরিচালক রেজওয়ান সেলিম শ্রমিকদের বিষয় দেখভাল করেন। তিনি বলেছেন, বিজিএমইএভুক্ত ৩ শতাধিক কারখানা করোনার কারণে বন্ধ হয়েছে। এতে ৭১ হাজার শ্রমিক বেকার হয়েছে। এছাড়া ছোট আকারের যেসব কারখানা বন্ধের খবর বলা হচ্ছে সে ব্যাপারে বিজিএমইএ জ্ঞাত নয়। চাকরিচ্যুত শ্রমিকদের অপরাধে জড়িয়ে পড়ার খবরে তিনি উদ্বেগ জানিয়েছেন।

বিকিএমইএর প্রথম সহসভাপতি মো. হাতেম বলেছেন, তাদের অধিভুক্ত ৩০-৩৫টি কারাখানা বন্ধ হয়ে গেছে। আরো কয়েকটি কারখানা বন্ধ হওয়ার পথে। এতে ৩০-৩৫ হাজার হাজার শ্রমিক বেকার হয়েছে। এছাড়া ছাঁটাই হয়েছে আরো কয়েক হাজার শ্রমিক। সব মিলিয়ে যা ৫০ হাজারের কাছাকাছি বলে জানান তিনি। বেকার বা চাকরিচ্যুত শ্রমিকরা অপরাধে জড়াচ্ছে এমন প্রশ্নে তিনি বলেছেন, সেটি তাদের জানার কথা নয়।

অন্যদিকে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ (বিলস) জানিয়েছে, করোনা সংকটে ছোট-বড় মিলিয়ে ১ হাজার ৯১৫ পোশাক কারখানা বন্ধ ও লেঅফ করা হয়েছে। এতে ৩ লাখ ২৪ হাজারের বেশি পোশাক শ্রমিক চাকরি হারিয়েছে। আবার শ্রমিক সংগঠনগুলো বলছে, করোনা মহামারির কারণে সরকার গত ২৬ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে। তখন থেকে গত ২৬ আগস্ট পর্যন্ত কাজ হারিয়েছে ১ লাখ ১০ হাজারের বেশি পোশাক শ্রমিক। অবশ্য কোনো কোনো সংগঠনের হিসাবে এই সংখ্যা ১ লাখ ৩০ হাজার। অনেকের মতে, হিসেবে নেই এমন চাকরিচ্যুত পোশাক শ্রমিকের সংখ্যা দুই থেকে আড়াই লাখ।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১৬ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে গাজীপুরে বোমা নিয়ে প্রাইম ব্যাংক লিমিটেডে (চান্দনা চৌরাস্তা শাখা) ঢুকে বিস্ফোরণের ভয় দেখিয়ে টাকা লুটের চেষ্টা করতে গিয়ে পুলিশের হাতে আটক হয় আবু বকর সিদ্দিক (৩০) নামে এক যুবক। তার কাছ থেকে জব্দ করা হয় ইমপ্রোভাইস এক্সক্লুসিভ ডিভাইস (আইইডি) বোমা। আটক আবু বকর সিদ্দিকের বাড়ি বাগেরহাটের মোড়লগঞ্জ উপজেলার বিমারি ঘাটা গ্রামে। সে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বোর্ডবাজার এলাকার বেলমন্ট পোশাক কারখানার চাকুরিচ্যুত শ্রমিক। ওই এলাকারই একটি বাড়িতে ভাড়া থাকত সে।

এর আগে ২০১৬ সালের ১৩ মার্চ ঢাকার তেজগাঁও বেগুনবাড়ী থেকে আটক করা হয় নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন জেএমবির সক্রিয় সদস্য মফিজুল ও রকিবুলকে। মফিজুল গাজীপুর সাইনবোর্ডের স্টার লাইন সোয়েটার ফ্যাক্টরি ও রকিবুল সাইনবোর্ড কামারঝুরি এলাকার আরেকটি পোশাক কারখানার শ্রমিক ছিল। ২০১৭ সালের ১৭ জুলাই আশুলিয়ার চাকলগ্রাম এলাকা থেকে পোশাক কারখানা শ্রমিক পরিচয়ে বাড়ি ভাড়া নেয়া কয়েকজন জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-৪। এছাড়া সম্প্রতি বেকার পোশাক কারখানার শ্রমিকরা ছোট-বড় অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে বলে পুলিশের কাছে খবর রয়েছে।

আগামীনিউজ/এএইচ