Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

প্রয়োজনে কাঁচা চামড়া রফতানির অনুমতি দেবে সরকার : বাণিজ্যমন্ত্রী


আগামী নিউজ | নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: জুলাই ২৬, ২০২০, ০৫:১৬ পিএম
প্রয়োজনে কাঁচা চামড়া রফতানির অনুমতি দেবে সরকার : বাণিজ্যমন্ত্রী

কাঁচা চামড়া -ফাইল ছবি

ঢাকা : বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বরেছেন সাধারণ মানুষ যাতে চামড়ার ন্যায্যমূল্য পায় সেজন্য প্রয়োজনে এবার কাঁচা চামড়া ও ওয়েষ্ট ব্লু  চামড়া রফতানির অনুমতি দেবে সরকার। এ বছর লবণযুক্ত কাঁচা চামড়ার মূল্য ঢাকায় গরুর প্রতিবর্গফুট ৩৫-৪০ টাকা, ঢাকার বাইরে ২৮-৩২ টাকা, খাসির চামড়া সারাদেশে ১৩-১৫ টাকা এবং বকরির চামড়া ১০-১২ টাকা মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে বাণিজ্যমন্ত্রী রোববার (২৬ জুলাই) কোরবানির পশুর কাঁচা চামড়ার মূল্য নির্ধারণ, কাঁচা চামড়া সংগ্রহ, প্রক্রিয়াজাত করণ, মিডিয়ায় প্রচার এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয় পর্যালোচনা সংক্রান্ত অনলাইন সভায় সভাপতিত্ব কালে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক বাজারে কাঁচা চামড়ার মূল্য এবং সামগ্রিক প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে সংশ্লিষ্ট বাণিজ্য সংগঠন, ট্যানারি অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দের সাথে পরামর্শ করে চামড়ার আন্তর্জাতিক বাজার দর, আন্তর্জাতিক বাজারে বাংলাদেশি চামড়া ও চামড়াজাত পণ্যের চাহিদা, কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে চাহিদা, বাংলাদেশের চামড়ার গুণগত মান, স্থানীয় চাহিদা ও মজুত পরিস্থিতি বিবেচনা করে এ মূল্য নির্ধারণ করা হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, চামড়ার নির্ধারিত মূল্য নিশ্চিতকরণ, যথাযথ প্রক্রিয়ায় চামড়া সংগ্রহ ও যথাসময়ে লবণ লাগানো নিশ্চিত করতে হবে। ঈদের দিন থেকে দেশব্যাপী কঠোরভাবে বিষয়গুলো মনিটরিং করবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের গঠিত টিম। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবাইকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। প্রয়োজনে এবার কাঁচা চামড়া ও ওয়েষ্ট ব্লু  চামড়া রফতানি করা হবে।

তিনি বলেন, এ বছর চামড়া যাতে নষ্ট না হয় এবং নির্ধারিত মূল্য নিশ্চিত করতে সরকার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে এবং কঠোরভাবে মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। চামড়া সংগ্রহের ৫-৬ ঘন্টার মধ্যে প্রয়োজনীয় লবণ মিশাতে হবে, দেশে পর্যাপ্ত লবণ রয়েছে, সরবরাহের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। চামড়া সংগ্রহ, সংরক্ষণ, প্রক্রিয়াজাত করণ, নির্ধারিত মুল্যে ক্রয়-বিক্রয়সহ সার্বিক ব্যবস্থাপনা তদারকির জন্য সকল বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসককে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর জেলা পর্যায়ে মনিটরিং করবে। জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেল, বেতার, কমিউনিটি রেডিওতে প্রচারণা চালানোর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এছাড়া, ফেসবুক-ইউটিউবে ১০ লাখ মানুষের কাছে ভিডিও বার্তা প্রেরণ এবং পর্যাপ্ত হ্যান্ডবিল বিতরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
 
টিপু মুনশি বলেন, দেশের মোট চাহিদার সিংহ ভাগ কাচাঁ চামড়া সংগ্রহ করা হয় পবিত্র উদুল আজহার সময়ে এবং প্রাপ্ত কাঁচা চামড়ার সাথে একদিকে যেমন দরিদ্র জনগোষ্ঠী বিশেষ করে এতিমখানা, মসজিদ ও মাদরাসা জড়িত, তেমনি এ কাঁচা চামড়া রফতানিমুখী শিল্পের কাঁচামাল। তাই এর উপযুক্ত মূল্য নিশ্চিত করতে হবে।

এদিকে বাণিজ্যমন্ত্রী এমন সিদ্ধান্ত জানানোর পর দেশের ট্যানারি মালিকরা আসন্ন ঈদুল আজহায় সরকার নির্ধারিত মূল্যে কাঁচা চামড়া ক্রয় করার ঘোষণা দিয়েছেন।

বাণিজ্য সচিব ড. মো. জাফর উদ্দীনের সঞ্চালনায় অনলাইন সভায় বক্তব্য রাখেন, তথ্য সচিব কামরুন নাহার, এফবিসিসিআইর সহ-সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান, বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েমনের সভাপতি শাহীন আহমেদ, বাংলাদেশ ফিনিশড লেদার, লেদারগুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ মাহিন, লেদার গুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচারার্স এন্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনে সভাপতি মো. সাইফুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আফতাব খান।

আগামীনিউজ/তরিকুল/এমজামান
    

 

Dr. Neem