Agaminews
Dr. Neem Hakim

জমিতেই নষ্ট হচ্ছে বাঁধাকপি, লোকসানের মুখে চাষিরা 


আগামী নিউজ | কুষ্টিয়া প্রতিনিধি প্রকাশিত: মে ৬, ২০২০, ১০:৫০ এএম
জমিতেই নষ্ট হচ্ছে বাঁধাকপি, লোকসানের মুখে চাষিরা 

ছবি সংগৃহীত

কুষ্টিয়া: গ্রীস্মকালীন সবজিতে অধিক লাভ হয় প্রতিমৌসুমে। তবে এবছর গ্রীস্মকালীন বাঁধাকপি চাষ করে লোকসানের আশঙ্কা করছেন চাষিরা। এমনকি এসব বাঁধাকপি বিক্রি করে শ্রমিকের খরচও উঠছে না। শ্রমিকের খরচ এবং পরিবহনের কথা চিন্তা করে চাষিদের বাঁধাকপি এখন জমিতেই পঁচে যাচ্ছে। খরচের ভয়ে জমি থেকে তুলছেন না বাঁধাকপি। 

এদিকে, স্থানীয় বাজারে যার দাম ২ থেকে ৫ টাকার মধ্যে। মাঠ থেকে যা আনতেই খরচ হয়ে যায় ৩ থেকে ৪ টাকা। 

চাষিরা দাবি করছেন, মহামারি করোনার কারণে বাঁধাকপি জেলার বাইরে পাঠাতে পারছেন না।বাইরে থেকে পাইকারি ক্রেতারাও আসতে পারছেন না। তাই বাঁধাকপি না কাটার কারণে জমিতেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। 

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার মালিহাদ এলাকার কৃষক সিহাব উদ্দিন। তিন বিঘা জমিতে গ্রীস্মকালীন বাঁধাকপির চাষ করেছেন। এখন পর্যন্ত একটা বাঁধা কপিও বাজারে বিক্রি করতে পারেননি। ক্ষেতেই নষ্ট হয়ে যাচ্ছে তার বাঁধাকপি। গতবছর বেশ ভালো ফলন পেলেও বাঁধাকপিতে এবার পুরো লোকসানের আশঙ্কা করছেন তিনি।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, মিরপুর উপজেলার ঝুটিয়াডাঙ্গা, আবুরী এলাকার বেশ কয়েকজন কৃষক প্রতিবছরই গ্রীস্মকালীন বাঁধাকপির চাষ করে। এবছরও প্রায় ১০ থেকে ১২ বিঘার মতো জমিতে তারা বাঁধাকপির চাষ করেছেন। 

এ প্রসঙ্গে মিরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ রমেশ চন্দ্র ঘোষ বলেন, গ্রীস্মকালীন বাঁধাকপি চাষটা বেশ লাভজনক হওয়ায় মিরপুরের বেশ কয়েকজন কৃষক এ বাঁধাকপির চাষ করে থাকেন। প্রতিবছর তারা বেশ ভালো দাম পেয়েছেন। তবে এবার করোনা কারণে একটু অসুবিধা হচ্ছে। দাম অনেকটাই কম। তবে কৃষকরা যাতে ন্যায্য দামে বাঁধাকপিসহ অন্যান্য সবজি বিক্রি করতে পারে সে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। 

আগামীনিউজ/মিজান 

Dr. Neem