Dr. Neem on Daraz
Dr. Neem Hakim

সৎ, যোগ্য ও শিক্ষার্থীবান্ধব নেতৃত্ব চায় পবিপ্রবি ছাত্রলীগ কর্মীরা


আগামী নিউজ | বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি, পবিপ্রবি প্রকাশিত: মে ১১, ২০২২, ০৪:০৯ পিএম
সৎ, যোগ্য ও শিক্ষার্থীবান্ধব নেতৃত্ব চায় পবিপ্রবি ছাত্রলীগ কর্মীরা

পটুয়াখালীঃ গত ৩১ মার্চ পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (পবিপ্রবি) শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠনের লক্ষ্যে সিভি গ্রহনের পর থেকে সাধারণ শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মীর মাঝেও উৎকণ্ঠা ও আগ্রহ শুরু হয়েছে কখন কারা আসছে পবিপ্রবি ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্বে। ইতিমধ্যে পদ-পদবি পেতে শুরু হয়েছে দৌড়ঝাঁপ। সম্ভাব্যদের কেউ কেউ ইতোমধ্যে লবিং-তদ্বিরের জন্য ঢাকায় অবস্থান করছেন।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পবিপ্রবি শাখার সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক মহসিন ১১ মে তার ফেসবুক টাইম লাইলে বলেন, "বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক মহোদয়ের কাছে আমাদের আকুল আবেদন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নতুন কমিটি গঠনে আওয়ামী-লীগ পরিবারের সন্তান, ত্যাগী, বিশ্ববিদ্যালয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে গ্রহণযোগ্যতা, অবস্থান, দীর্ঘদিন সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকের অনুপস্থিতে এবং করোনাকালীন সময় যারা নেতৃত্ব দিয়েছে,তাদের ভিতর থেকে বাছাইয়ের মাধ্যমে একটি সুন্দর ও স্বচ্ছ নেতৃত্ব উপহার দিবেন।  স্বজনপ্রীতি, বিতর্কিত, রিজন ভিত্তিক, জামাত, বিএনপি পরিবারের সদস্য এমন নেতৃত্ব দেওয়া হলে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ পরিবার তাদের অবাঞ্চিত ঘোষণা করবে।"

ক্যাম্পাস ঘুরে জানা যায়, স্বজনপ্রতি, বিতর্কিত, অপকর্মকারী, নিয়মিত মাদকসেবি, জামায়াত–বিএনপি পরিবারের সন্তান ও আশীর্বাদ পুষ্ট,কাউকে নেতৃত্বে দিলে ছাত্রলীগ কর্মীরা তাকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করবে।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পবিপ্রবি শাখার সাবেক সহ সভাপতি রাতুল দেউরি বলেন, "বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক অবশ্যই বিতর্কমুক্ত স্বচ্ছ ব্যক্তিকে নেতৃত্ব প্রদান করবেন।"

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পবিপ্রবি শাখার সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাইম হোসেন বলেন, "ক্যাম্পাসে যারা এতদিন  ছাত্রলীগের কর্মসূচি বাস্তবায়নে কাজ করে আসছে এমন নেতৃত্বই চাই। অদক্ষ ব্যক্তি নেতৃত্বে আসলে বিশৃঙ্খলা দেখে দিবে তার ব্যার্থতার জন্যই।"

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পবিপ্রবি শাখার সাবেক অর্থ বিষয় সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রোমিও বলেন, "বিতর্কিত কোন নেতৃত্ব এলে তা পবিপ্রবি ছাত্রলীগ কর্মীদের মধ্যে গ্রহণযোগ্যতা পাবেনা।"

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পবিপ্রবি শাখার সাবেক দপ্তর সম্পাদক তুহিন রায়হান বলেন,"শিক্ষার্থীবান্ধব দীর্ঘদিন ছাত্রলীগের সাথে যুক্ত বিতর্কমুক্ত এমন নেতৃত্ব চাই।"

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পবিপ্রবি শাখার সাবেক পরিবেশ বিষয় সম্পাদক মোঃ তৌহিদুই ইসালম বলেন,"কোঠা আন্দোলনকারী বিশেষ সুপারিশপ্রাপ্ত, মাদকাসক্ত, বিএমপি পরিবার, বিতর্কিতদের নেতৃত্ব  প্রদানের না করার  আহ্বান করেছি।"

শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানা হিমেল বলেন, "যারা এতদিন সিন্ডিকেট বাদ দিয়ে ফেইসবুক পোস্ট বা একদিনের কর্মসূচিতে সীমাবদ্ধ না থেকে বরং পারিবারিক দলীয় অবস্থান, মাদকমুক্ত, রক্ত মাংসে যাদের আওয়ামী লীগ , যারা কেন্দ্র ঘোষিত সকল কর্মসূচি ও জাতীয় সকল প্রোগ্রাম বাস্তবায়ন করেছে, কোভিড -১৯ কালে বিভিন্নভাবে অসহায় লোকজনদের পাশে থাকাসহ জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে রাজপথে সোচ্চার ছিল এবং এখনো আছে। ইতিপূর্বে নৌকার জন্য কাজ করেছে বিশেষ করে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে  ভবিষ্যতেও কাজ করে যাবে তাদেরকেই প্রানের সংগঠন পবিপ্রবি ছাত্রলীগের নেতৃত্ব প্রদান করা হোক।"

শের ই বাংলা হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান মাহমুদ বলেন,"যারা দীর্ঘদিন ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত বিতর্কমুক্ত নেতৃত্ব চাই অন্যথায় বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার তাদের বর্জন করবে।"

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাইফ হোসেন বলেন," যারা ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে শুধুমাত্র সেন্ট্রাল লবিং এর জন্য ছুটেন শুধুমাত্র তাদের কে বিবেচনা না করে, যারা ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের ন্যায্য দাবি আদায়ে অগ্রণী ভুমিকা পালন করছে। যারা দীর্ঘদিন নেতৃত্বশূন্য ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগ নামক শব্দটি টিকিয়ে রেখেছে তাদের মধ্যে থেকে কাউকে নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয়  নেতৃবৃন্দের প্রতি অনুরোধ করছি।"

এম. কেরামত আলী হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ অমিত মাহমুদ বলেন," বিএনপি পরিবার, কোটা আন্দোলনকারী, মাদকাসক্ত ও বিতর্কমুক্ত কমিটি চাই অন্যথায় বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার তাদের বর্জন করতে আমারা প্রস্তুত।"

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ১৬ জুন পবিপ্রবি ছাত্রলীগের বর্ধিত সভা শেষে তৎকালীন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি রেজয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ২০১৯ সালের ৫ অক্টোবর সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করেন। পরবর্তীতে তারা দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পাওয়ার পর দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও নতুন দায়িত্ব পাওয়া সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য সম্মেলন করেননি। নতুন কমিটি গঠনের লক্ষে গত ৩১ মার্চ তারিখ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য জীবন বৃত্তান্ত সংগ্রহ করা হয়৷

সাব্বির হোসেন/এমএম