Agaminews
Dr. Neem Hakim

দেশে করোনায় আরও এক মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩ জন : আইইডিসিআর


আগামী নিউজ | বাংলাদেশ প্রতিদিন প্রকাশিত: এপ্রিল ২, ২০২০, ০৪:১৪ এএম
দেশে করোনায় আরও এক মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩ জন : আইইডিসিআর

বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশে মোট ৬ জনের মৃত্যু হলো। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১৫৭ জনকে পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন তিনজন। এ নিয়ে সর্বমোট আক্রান্ত হলেন ৫৪। সুস্থ হয়ে বাড়ি গেছেন ২৬ জন। গতকাল দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সরাসরি অনলাইন ব্রিফিংয়ে যুক্ত হয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এসব তথ্য দেন। সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, করোনাভাইরাস বাংলাদেশে সামাজিক পর্যায়ে সংক্রমিত হচ্ছে, তবে তা মৃদু মাত্রায়।  স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, আমরা প্রতিনিয়ত স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নয়ন করছি। হাসপাতালগুলোকে আরও প্রস্তুত করছি। ঢাকা ও ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলো প্রস্তুত করা হচ্ছে। আমরা ইতিমধ্যে কুর্মিটোলাকে প্রস্তুত করেছি। যেখানে ভেন্টিলেটর থাকবে। আমরা গ্যাস্ট্রোলিভারকে প্রস্তুত করেছি। সেখানে ভেন্টিলেটর ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা থাকবে। ঢাকার বাইরে ময়মনসিংহ, রাজশাহী ও রংপুর মেডিকেলকে প্রস্তুত করা হচ্ছে। আমরা ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) ও মাস্কের সংখ্যা বাড়িয়েছি। হাসপাতালে ভেন্টিলেটর বসাচ্ছি। সরকারি হাসপাতালে ৫০০ ভেন্টিলেটর বসানোর কাজ চলছে। ৩০০ আনা হচ্ছে। তিনি বলেন, যারা সন্দেহজনক মনে করছেন, তারা টেস্ট করুন। বেশি বেশি করে টেস্ট করুন। নিজেরা সুস্থ থাকুন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন স্থানে সরকারি নির্দেশনা কিছুটা অমান্য হচ্ছে। অনেক জায়গায় লোকজন ঘোরাফেরা করছেন। গ্রামের বাড়িতে যারা গেছেন, তারা বেশি ঘোরাফেরা করছেন। আমরা দেশকে ঝুঁকির মধ্যে নিতে পারি না। আপনারা এ ধরনের কাজ (বাইরে ঘোরাফেরা) থেকে বিরত থাকুন। তিনি বলেন, বেসরকারি হাসপাতালগুলো সাধারণ সময়ে বেশ ভালো চিকিৎসা দিয়ে থাকে। কিন্তু বেশ কিছু অভিযোগ আসছে দেশের এই দুর্যোগের সময় তারা রোগীদের ফিরিয়ে দিচ্ছেন। আমি সকল বেসরকারি হাসপাতালকে বলব, এ অবস্থা মোটেও কাম্য নয়। আশা করব আপনারা দেশবাসীর পাশে দাঁড়াবেন। ভিডিও ব্রিফিংয়ে জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের (আইপিইএইচ) ভাইরোলজিস্ট খন্দকার মাহবুবা জামিল জানান, কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে, তবে মৃদু লেভেলে। কারণ যে পরিমাণ স্যাম্পল আসছে তার তুলনায় করোনাভাইরাস পজিটিভ পাওয়া যাচ্ছে খুবই কম। কমিউনিটি ট্রান্সমিশন যদি বেশি হতো তাহলে সবগুলোতে আমরা পজিটিভ পেতে পারতাম। স্বাস্থ্য অধিদফতরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) শাখার পরিচালক হাবিবুর রহমান জানান, গতকাল পর্যন্ত সারা দেশে ১৭৫৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫৪ জনের মধ্যে কভিড-১৯ এর সংক্রমণ ধরা পড়েছে।  অর্থাৎ সংগৃহীত মোট নমুনার তুলনায় নভেল করোনাভাইরাসে নিশ্চিত আক্রান্তের হার ৩ শতাংশের সামান্য বেশি।

আগামী নিউজ/নাঈম
 

Dr. Neem