Agaminews
Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

রামেকে কমছে করোনায় মৃত্যু, ভ্রাম্যমাণ টেস্টে মাঠে প্রশাসন


আগামী নিউজ | আমানুল্লাহ আমান, রাজশাহী প্রতিনিধি প্রকাশিত: জুন ৬, ২০২১, ১১:১০ এএম
রামেকে কমছে করোনায় মৃত্যু, ভ্রাম্যমাণ টেস্টে মাঠে প্রশাসন

ছবি : আগামী নিউজ

রাজশাহীঃ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ও এর উপসর্গ নিয়ে মৃতের সংখ্যা কমে এসেছে। করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে মারা গেছেন ৬ জন। শনিবার (৫ জুন) সকাল ৭টা থেকে রবিবার (৬ জুন) সকাল ৭টার পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে এ ৬ জনের মৃত্যু হয়। অথচ আগের দিন মারা যান ৮ জন। আর তার আগের ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয় সর্বোচ্চ ১৬ জনের। এদিকে এবার করোনা টেস্টের জন্য মাঠে নেমেছে প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ টিম। 

হাসপাতাল সূত্র জানায়, সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া এ ৬ জনের মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের রয়েছেন তিনজন। বাকি তিনজন রাজশাহী, নাটোর ও চুয়াডাঙ্গার বাসিন্দা। এদের মধ্যে করোনা পজেটিভ ছিলেন দুইজন।

তথ্যমতে, চলতি মাসের ৬ দিনে (১ জুন সকাল ৬টা থেকে ৬ জুন সকাল ৬টা পর্যন্ত) এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেলেন ৫৩ জন। এর মধ্যে ৩৫ জনেরই মৃত্যু হলো করোনায়। এর মধ্যে ১ জুন, সাতজন, ২ জুন সাতজন, ৩ জুন নয়জন, ৪ জুন ১৬ জন, ৫ জুন ৮ জন ও সর্বশেষ ৬ জুন ছয়জন।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, রাজশাহীতে বেড়েছে সংক্রমণ ও হাসপাতালে রোগির সংখ্যা। রবিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২৩৫ জন। যা আগের দিন শনিবার ছিল ২২৪ জন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ২৩৫ রোগীর মধ্যে রাজশাহীর ১০৮ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৯৯ জন, নওগাঁর ১০, নাটোর ১০, পাবনা ছয়জন ও কুষ্টিয়ার দুইজন। এদের মধ্যে আইসিইউতে রয়েছেন ১৬ জন। এছাড়াও গত ২৪ ঘন্টায় ভর্তি হয়েছেন ৩০ জন। এর মধ্যে রাজশাহীর ১৮, চাঁপাইনবাবগঞ্জের আটজন, নওগাঁর তিন ও নাটোরের একজন।

রামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে দুইজনের করোন পজেটিভ ছিল। তাদের দুইজনের বাড়িই চাঁপাইনবাবগঞ্জে। বাকিরা উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এদের মধ্যে আইসিইউতে দুইজন, ৩ নং ওয়ার্ডে একজন, ১৬ নম্বরের দুইজন ও ২৯ নম্বরের একজন।

ডা. সাইফুল আরো বলেন, শনিবার রাজশাহীর দুইটি পিসিআর ল্যাবে ৫৪২ জনের নমুনা পরীক্ষার ২৯২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহীর ৩৬৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৮৪ জনের পজিটিভ এসেছে। আর চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১৭৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১০৮ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে।

এদিকে করোনার উর্ধমুখী সংক্রমণ ঠেকাতে রাজশাহীতে চলছে রাত্রীকালীন লকডাউন। প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭ টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত দোকান-পাট, মার্কেট ও মানুষের চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। এছাড়াও বন্ধ রয়েছে সভা-সমাবেশসহ সব ধরণের সামাজিক অনুষ্ঠান। তবে এবার সাধারণ মানুষের করোনা টেস্ট করতে মাঠে নেমেছে প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ টিম।

রবিবার (৬ জুন) সকাল ১০ টায় নগরীর সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে এর উদ্বোধন করা হয়। উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক, রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, সিভিল সার্জন ডা. মো. কাইয়ুম তালুকদারসহ প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা। এ সময় জনসাধারণের মাঝে ভ্রাম্যমান করোনা টেস্ট শুরু করা হয়।

এদিন নগরীর আরো চারটি পয়েন্টে র‍্যাপিড এন্টিজেন টেস্ট করা হবে। সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট ছাড়াও বাকি চারটি পয়েন্ট হলো- হড়গ্রাম বাজার, সিএন্ডবি মোড়, লক্ষীপুর মোড় ও তালাইমারী বাজার। প্রতিটি পয়েন্টে একজন ম্যাজিস্ট্রেটের নের্তৃত্বে স্যাম্পল কালেকশন করা হবে। এ কাজে সার্বিক সহযোগিতা করবে সিভিল সার্জন অফিস ও রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ।

এ বিষয়ে প্রশাসনের কর্মকর্তারা জানান, রাজশাহীতে রাত্রীকালীন কঠোরতা চলছে।তবে মূলত জনসাধারণের মাঝে এ করোনা টেস্ট করে তার রিপোর্ট দেখার পরই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে দিনেও কঠোর লকডাউন জারির বিষয়ে।