Dr. Neem
Dr. Neem Hakim

সূচনালগ্ন থেকেই ঢাবি অসাম্প্রদায়িক বৈশিষ্ট্যের বিদ্যাপীঠ: রাষ্ট্রপতি


আগামী নিউজ | ডেস্ক রিপোর্ট প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১, ২০২১, ০৪:০৫ পিএম
সূচনালগ্ন থেকেই ঢাবি অসাম্প্রদায়িক বৈশিষ্ট্যের বিদ্যাপীঠ: রাষ্ট্রপতি

ছবিঃ সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একশ’ বছরের গৌরবময় ইতিহাসের দিকে ফিরে তাকালে দেখা যায়, মুসলিম অধ্যুষিত পূর্ব-বাংলায় মুসলিম নেতৃবৃন্দের ক্ষোভ প্রশমনের উদ্দেশ্যে প্রতিষ্ঠিত হলেও জন্মলগ্ন থেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছিল অসাম্প্রদায়িক ও অনন্য বৈশিষ্ট্যের এক গৌরবময় বিদ্যাপীঠ। সূচনালগ্ন থেকেই এই বিশ্ববিদ্যালয়কে কেন্দ্র করে মুক্তবুদ্ধিচর্চা শুরু হয়।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন রাষ্ট্রপতি।

রাষ্ট্রপ্রধান আজ দুপুরে ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ পূর্তি এবং মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্‌যাপন অনুষ্ঠান’-এর উদ্‌বোধন অনুষ্ঠানে বঙ্গভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন।

অনুষ্ঠানে আবদুল হামিদ বলেন, অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পেরে আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি। করোনা মহামারির কারণে শতবর্ষের বর্ণাঢ্য এ অনুষ্ঠানে সশরীরে উপস্থিত থাকার আন্তরিক ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও তা সম্ভব হয়নি। আশা করি, মহামারির অবসান ঘটলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য কোনো অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে আপনাদের সঙ্গে নিশ্চয়ই মিলিত হতে পারব। ডিসেম্বর আমাদের বিজয়ের মাস। সবাইকে বিজয়ের শুভেচ্ছা ও উষ্ণ অভিনন্দন। বিজয়ের মাসে আমি গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে।

আমি সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করছি মুক্তিযুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী বীর শহিদদের, যাদের সর্বোচ্চ ত্যাগে অর্জিত হয়েছে আমাদের স্বাধীনতা। আমি শ্রদ্ধা জানাই মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক-সমর্থক, বিদেশি বন্ধু, যুদ্ধাহত ও শহিদ পরিবারের সদস্যসহ সর্বস্তরের জনগণকে, যাদের অসীম সাহস ও আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমরা অর্জন করেছি একটি সার্বভৌম দেশ ও স্বাধীন জাতিসত্তা।

আবদুল হামিদ বলেন, বাংলাদেশ সৃষ্টির পূর্বেকার ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় স্বাধীনতা-উত্তর সময়েও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সকল অগণতান্ত্রিক, অপসংস্কৃতি ও সামরিক স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন-সংগ্রামে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে চলেছে। এরই স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৭ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে স্বাধীনতা পদকে ভূষিত করা হয়। মুজিব জন্মশতবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রিসার্চ ইন্সটিটিউট ফর পিস অ্যান্ড লিবার্টি’ স্থাপনও একটি অনন্য উদ্যোগ।

অনুষ্ঠানে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান ড. কাজী শহীদুল্লাহ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান এবং ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ কে আজাদও বক্তব্য রাখেন।

আগামীনিউজ/নাসির