Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

পণ্যের গুণগত মান নিশ্চিতে কিউআর কোড


আগামী নিউজ | ডেস্ক রিপোর্ট প্রকাশিত: নভেম্বর ১৯, ২০২০, ১২:১০ পিএম
পণ্যের গুণগত মান নিশ্চিতে কিউআর কোড

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকাঃ পণ্যের গুণগত মান শতভাগ নিশ্চিত করতে চালু হচ্ছে কিউআর কোড। বিএসটিআইয়ের লোগোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য এটি চালু করতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। উন্নত দেশগুলোতে এই ব্যবস্থা চালু রয়েছে অনেক আগে থেকে। এবার ক্রেতাদের সঠিক পণ্য নিশ্চিত করতে বাংলাদেশেও তা চালু হচ্ছে। কিউআর কোডের মাধ্যমে একজন ক্রেতা মোবাইল এ্যাপসে তাৎক্ষণিকভাবে পণ্যটি উৎপাদন ও বিপণন সম্পর্কে ধারণা পেয়ে যাবেন। জানতে পারবেন বিএসটিআইয়ের লাইসেন্স সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য। এর ফলে সাধারণ ক্রেতারা অবৈধভাবে বিএসটিআইয়ের লোগো ব্যবহারকারীদের প্রতারণা থেকে রক্ষা পাবেন। বন্ধ হবে নিম্নমানের পণ্য উৎপাদন এবং বাজারজাতকরণ।

বিএসটিআইয়ের কর্মকর্তারা জানান, অনেক ক্ষেত্রে পণ্য উৎপাদনের লাইসেন্স ছাড়াই বিএসটিআইয়ের লোগো ব্যবহার করে পণ্য বাজারজাত করছে এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ী। ফলে আসল নকল না জেনেই পণ্য কিনে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন ভোক্তারা। ভোগ্যপণ্যসহ ১৮১ উৎপাদিত পণ্যের গুণগত মান নিশ্চিত করতে বিএসটিআইয়ের লাইসেন্স থাকা বাধ্যতামূলক। কিছু অসাধু ব্যবসায়ী এসব লাইসেন্সের ধার ধারছেন না। ভেজাল বা মানহীন পণ্যের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছে বিএসটিআই। এতে দেখা গেছে কোন প্রকার লাইসেন্স গ্রহণ ছাড়াই বাজারে দেদারছে পণ্য বিক্রি চলছে। ভোক্তারা এগুলো আসল মনে করে কিনছেন। অভিযানে এখন পর্যন্ত বহু প্রতিষ্ঠানের পণ্য উৎপাদন ও বিপণন নিষিদ্ধও করা হয়েছে। অভিযান চালিয়েও এসব ব্যবসায়ীকে দমানো যাচ্ছে না। ক্রেতারা যাতে নকল পণ্য কিনে প্রতারিত না হন তা নিশ্চিতে কিউআর কোড চালুর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিএসটিআইয়ের সেবা আরও জনবান্ধব ও সহজ করার লক্ষ্যে স্টেক হোল্ডারদের নিয়ে সম্প্রতি তেজগাঁওয়ে প্রধান কার্যালয়ে গণশুনানি হয়। এতে পণ্যের নকল রোধের এই কিউআর কোড বাস্তবায়নের ওপর জোর দেয়া হয়েছে।

গণশুনানিতে ইউনিলিভার বাংলাদেশ লিমিটেড, এসিআই লিমিটেড, ম্যারিকো বাংলাদেশ লিমিটেড, আবুল খায়ের গ্রুপ, বিআরবি ক্যাবল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত থেকে বিএসটিআইয়ের সেবা সম্পর্কে তাদের মতামত তুলে ধরেন এবং বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করেন। বক্তারা বলেন, সিটিজেন চার্টার অনুযায়ী বিএসটিআইয়ের সেবা অতীতের চেয়ে দ্রুততম সময়ে প্রদান করা হচ্ছে। ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে নকল ও নিম্নমানের পণ্যের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট জোরদারের দাবি করা হয়।

প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা জানান, যারা নিম্নমানের পণ্য উৎপাদন করে ও অবৈধভাবে বিএসটিআইয়ের লোগো ব্যবহার করে তাদের কঠোর শাস্তি নিশ্চিতেই এই ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এসব প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন পণ্য ও সেবার মান প্রণয়নের দায়িত্ব বিএসটিআইয়ের। পণ্য ও সেবার মান প্রণয়নের পাশাপাশি সরকার নির্ধারিত ১৮১টি পণ্যের অনুকূলে মান সনদ দেয়া এবং সেসব পণ্যের মান তদারকির দায়িত্ব বিএসটিআইয়ের। কিছু অসাধু ব্যবসায়ী নিম্নমানের পণ্য উৎপাদন ও অবৈধভাবে বিএসটিআইয়ের লোগো ব্যবহার করে। মানসম্পন্ন পণ্যের নিশ্চয়তা বিধান বিএসটিআইয়ের দায়িত্ব।

বিএসটিআইয়ের মহাপরিচালক ড. নজরুল আনোয়ার বলেন, কিউআর কোড বাস্তবায়নের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। বর্তমান পণ্যের গায়ে বিএসটিআইয়ের লোগো সঠিক কিনা তা ভোক্তারা যাচাই করতে পারেন না। কিউআর কোড বাস্তবায়িত হলে যে কোন ক্রেতা মোবাইল এ্যাপসের মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে বিএসটিআইয়ের লাইসেন্স সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য জানতে পারবেন। এর ফলে সাধারণ ক্রেতারা অবৈধভাবে বিএসটিআইয়ের লোগো ব্যবহারকারীদের প্রতারণা থেকে রক্ষা পাবেন।

তিনি বলেন, বিএসটিআইয়ের সেবা জনবান্ধব ও বিশ্বমানের করার লক্ষ্যে প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এ লক্ষ্য বাস্তবায়নে আরও ৪৬টি নতুন ল্যাবরেটরি স্থাপন, ১৩টি আঞ্চলিক অফিসের পাশাপশি ৬৪ জেলায় বিএসটিআইয়ের অফিস স্থাপন, প্রধান কার্যালয় ও বিভাগীয় কার্যালয়ের বিদ্যমান ল্যাবরেটরিসমূহের আধুনিকায়নসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।

আগামীনিউজ/এএইচ