1. প্রচ্ছদ
  2. জাতীয়
  3. সারাবাংলা
  4. রাজনীতি
  5. রাজধানী
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আদালত
  8. খেলা
  9. বিনোদন
  10. লাইফস্টাইল
  11. শিক্ষা
  12. স্বাস্থ্য
  13. তথ্য-প্রযুক্তি
  14. চাকরির খবর
  15. ভাবনা ও বিশ্লেষণ
  16. সাহিত্য
  17. মিডিয়া
  18. বিশেষ প্রতিবেদন
  19. ফটো গ্যালারি
  20. ভিডিও গ্যালারি

মরদেহের মুখের ওপর বালিশ!

জেলা প্রতিনিধি, জয়পুরহাট প্রকাশিত: আগস্ট ১৬, ২০২২, ১১:৪৪ পিএম মরদেহের মুখের ওপর বালিশ!

জয়পুরহাটঃ আক্কেলপুরে দুলাল হোসেন (৩৫) নামে এক জিরা ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) বিকেলে আক্কেলপুর পৌর শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার সংলগ্ন তালতলী বাজারের পাশে বস্তির একটি তালাবন্ধ ঘর থেকে তার অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

দুলাল হোসেনের বাড়ি দিনাজপুরের হিলিতে রাজধানীর মোড় এলাকায়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা বলছে, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাশে রেলের জমিতে গড়ে তোলা ফজলুর রহমানের বস্তির একটি ঘরে ভাড়া থাকতেন দুলাল হোসেন। তার সঙ্গে ওই ঘরে মাঝে মধ্যে সম্পর্কে এক ভাতিজা (১৭) থাকতেন। 

দুলাল প্রতিদিন সকালে তিতুমীর আন্তনগর ট্রেনে উঠে হিলির উদ্দেশ্যে রওনা হতেন আবার রাতে সীমান্ত আন্তনগর ট্রেনে ওই ঘরে এসে থাকতেন। 

আজ বেলা ১১টার দিকে ওই বস্তির মালিক দুর্গন্ধ পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। এরপর পুলিশ এসে দুলালের ওই ঘরের দরজার বাহির থেকে তালা, এবং ভেতরে মরদেহের মুখের ওপরে বালিশ দেখতে পায়।

বস্তির মালিক ফজলুর রহমান বলেন, ‘গত রোববার দুপুরে দুলালের পাশের ঘরে থাকা ভাড়াটিয়া আমাকে জানায় দুলালের ঘরে মারামারির শব্দ শুনতে পেয়েছে। ওই খবর পেয়ে আমি দুলালের ঘরে যেতেই দুলালের ভাতিজা (নাম তিনি জানতেন না) আমাকে জানায় তাঁদের মধ্যে সামান্য মারধরের ঘটনা ঘটেছে, আপনাকে আসতে হবে না। তখন আমি আর ওই ঘরের দিকে যাইনি। আজ বেলা ১১টার দিকে ওই ঘর থেকে দুর্গন্ধ পেয়ে ঘটনাটি পুলিশকে জানাই।’

নিহত দুলালের সঙ্গে ব্যবসা করতেন পাশের গ্রাম চুড়িপট্টি গ্রামের বাসিন্দা পারুল বেগম। তিনি বলেন, ‘আমার সাথে দুলাল ভারতীয় জিরা ব্যবসা করত। সেই সুবাদে দুলাল আমার কাছ থেকে টাকা ধার নিয়েছিল। সেই টাকা নিতে আমি এর আগে এসেছিলাম দুলালের কাছে। আজ সকালে আবারও টাকা নিতে এসে দেখি দুলালের ঘর থেকে দুর্গন্ধ বের হচ্ছে।’

এ বিষয়ে আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর সিদ্দীক বলেন, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখি দুলালের ঘরের দরজার বাইরে তালা ঝোলানো। এরপর ঘরের বাহির দিকের জনালা দিয়ে ভেতরে দেখা যায় দুলালের মরদেহ ফুলে উঠেছে। তার মুখের ওপরে একটি বালিশ রাখা হয়েছে। বিষয়টি গভীর তদন্তের জন্য ঘটনাস্থলে ক্রাইমসিন ম্যানেজমেন্ট টিমকে খবর দেওয়া হয়েছে। ওই টিম এলে আমরা ঘরের তালা ভেঙে ওই মরদেহ বের করব।’

এসএস

Small Banner