1. প্রচ্ছদ
  2. জাতীয়
  3. সারাবাংলা
  4. রাজনীতি
  5. রাজধানী
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আদালত
  8. খেলা
  9. বিনোদন
  10. লাইফস্টাইল
  11. শিক্ষা
  12. স্বাস্থ্য
  13. তথ্য-প্রযুক্তি
  14. চাকরির খবর
  15. ভাবনা ও বিশ্লেষণ
  16. সাহিত্য
  17. মিডিয়া
  18. বিশেষ প্রতিবেদন
  19. ফটো গ্যালারি
  20. ভিডিও গ্যালারি

যৌতুকের জন্য চাপ, একসঙ্গে প্রাণ দিলেন স্বামী-স্ত্রী

জেলা প্রতিনিধি, নওগাঁ প্রকাশিত: জুলাই ১২, ২০২২, ০৯:৩১ পিএম যৌতুকের জন্য চাপ, একসঙ্গে প্রাণ দিলেন স্বামী-স্ত্রী

নওগাঁঃ নওগাঁর নিয়ামতপুর উপজেলায় কীটনাশক পান করে একটি ডিঙি নৌকার ওপর আত্মহত্যা করেছেন স্বামী-স্ত্রী। মঙ্গলবার (১২ জুলাই) দুপুরে নিয়ামতপুর উপজেলার শীবনদে একটি ডিঙ্গি নৌকা থেকে পুলিশ তাদের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

নিহত দুইজন হলেন নওগাঁর মান্দা উপজেলার ভারশোঁ ইউনিয়নের বিল সুরশুনিয়া গ্রামের আদম আলীর ছেলে রায়হান আলী (২৫) ও তার স্ত্রী পার্শ্ববর্তী শ্রীকলা গ্রামের ইস্কেন্দার আলীর মেয়ে তারাবানু (১৯)।

স্থানীয়রা জানান, সম্পর্ক করে ৭-৮ মাস আগে রায়হান আলী ও তারাবানু বিয়ে করেন। বিয়ের পর থেকে ছেলের পরিবার মেয়ের পরিবারকে যৌতুকের জন্য চাপ দিত। সেটা নিয়ে দুই পরিবারের মাঝে কলহ চলছিল। সোমবার (১১ জুলায়) রাতে তারাবানু তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে খাবার খেয়ে তার ঘরে ঘুমাতে যান। সকালে তাকে আর ঘরে পাওয়া যায়নি। 

পরে লোকজনের মাধ্যমে জানা যায় তারাবানু ও তার স্বামীর মরদেহ পার্শ্ববর্তী নিয়ামতপুর থানার শীবনদে একটি ডিঙি নৌকার ওপর পড়ে আছে।

তারাবানুর বাবা ইস্কেন্দার আলী বলেন, সোমবার রাতে তাদের সঙ্গে খাবার খাই। রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত মেয়ে তার ঘরেই ছিল। তবে কখন সে তার ঘর থেকে বেরিয়ে যায় আমরা কেউ জানতে পারিনি। ছেলের পরিবার যৌতুকের জন্য বিভিন্নভাবে চাপাচাপি করত। এ নিয়ে সংসারে অশান্তি চলছিল। ক্ষোভের বসে হয়ত স্বামী-স্ত্রী আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে।

নিয়ামতপুর থানার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ন কবীর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সকালে নদীতে জেলেরা মাছ ধরতে গিয়ে নৌকায় দুইজনের মরদেহ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে দুপুরে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়েছে। আগামীকাল (বুধবার) মরদেহের ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। 

এ ঘটনায় নিয়ামতপুর থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করা হয়েছে। নিহতদের বাড়ি মান্দা উপজেলায় হলেও ঘটনাস্থল ছিল নিয়ামতপুরের মধ্যে। এর আগেও একটি বিয়ে হয়েছিল তারাবানুর। পরবর্তীতে রায়হান আলীর সঙ্গে সম্পর্ক হয়। গত ৭-৮ মাস আগে তাদের বিয়ে হয়। বাবা-মা তাদের এ বিয়ে মেনে নেননি।

এসএস

Small Banner