August
  1. প্রচ্ছদ
  2. জাতীয়
  3. সারাবাংলা
  4. রাজনীতি
  5. রাজধানী
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আদালত
  8. খেলা
  9. বিনোদন
  10. লাইফস্টাইল
  11. শিক্ষা
  12. স্বাস্থ্য
  13. তথ্য-প্রযুক্তি
  14. চাকরির খবর
  15. ভাবনা ও বিশ্লেষণ
  16. সাহিত্য
  17. মিডিয়া
  18. বিশেষ প্রতিবেদন
  19. ফটো গ্যালারি
  20. ভিডিও গ্যালারি

শিক্ষায় সেবায় মানবতায় একজন কিংবদন্তি অধ্যাপক নূরুল করিম

গোপাল রায় প্রকাশিত: জুন ২৯, ২০২২, ০৯:৫০ পিএম শিক্ষায় সেবায় মানবতায় একজন কিংবদন্তি  অধ্যাপক নূরুল করিম

প্রত্যেক বছর বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি পরীক্ষা হয়। লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থী অংশ নেন। পরীক্ষা কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় হাজার হাজার শিক্ষার্থীর ভিড়। গ্রামের অনেক শিক্ষার্থীই এমন আছেন যে, প্রথম এতো শিক্ষার্থী দেখে ভয় পায়, ভয়ে ভয়ে কোনো প্রকারে পরীক্ষা দিয়ে কেটে পরে। 

ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল হয়। চান্সও হও! চান্স পেয়ে যখন চান্সপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা ভর্তি হতে যায় তখন দেখা যায় সবাই কমবেশি গ্রাম থেকে উঠে আসা সহজ সরল শিক্ষার্থী। 

তখন আর ভর্তি পরীক্ষার সময়ের মতো এসি কার ওয়ালা ছেলে মেয়েদের খুঁজেও পাওয়া যায় না। তখন যারা চান্স পেয়ে ভর্তি হতে আসে, সবার মাথার চুলে জবজবে চিকচিককরে সরষে বা নারিকেল তেল। সেসব শিক্ষার্থীর পায়ে বাটা স্যান্ডেল আর পাড়ার দর্জির কাছে সেলাই করা লোকজ ফুল পাতা নকশার সুতি শার্ট পরতে দেখা যায়। সাথে বার্মিজ স্যান্ডেল পরা,  আধা পুরাতন লুঙ্গি পরা,  হাতে ব্যাগ নেওয়া সহজ সরল গর্বিত বাবাগুলোকেও দেখা যায় তাদের সন্তানের সাথে আসতে! 

ইসসসসসসসসসসসসসস!

এমন দৃশ্য এমনি এমনি দেখা যায় না বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে! এসব অদম্য উচ্ছাসের দৃশ্যের পিছনে অনেক গল্প থাকে অনেক! ঠিক তেমনি একজন এমন গল্পের নায়ক হলেন নীলফামারী সরকারি কলেজের সহকারী অধ্যাপক মোঃ নূরুল করিম স্যার ।  শুধু নায়ক বললে ভুল হবে, তিনি এমন হাজার হাজার শিক্ষার্থীর মহানায়ক, সুপারম্যান, সুপারস্টার, কিংবদন্তি!

নূরুল করিম স্যার, তিনি হাজার হাজার স্বপ্নবাজ শিক্ষার্থীর বুকে  স্বপ্নের লেলিহান দগদগে দাবানলের উষ্কে দেওয়া শিক্ষার আগুন!

নূরুল করিম স্যার, তিনি হাজার হাজার দিশেহারা,  পথহারা শিক্ষার্থী পথিকের শিক্ষার পথ দেখিয়ে দেওয়ার অগ্রনায়ক!

নূরুল করিম স্যার, হাজার হাজার শিক্ষার্থীর শিক্ষার বটবৃক্ষ যার আশ্রয় তলে থেকে তপ্ত দুপুরেও শীতল বাতাস পাওয়া যায়, অক্সিজেন পাওয়া যায় বেঁচে থাকার জন্য!

এই মানুষটি তার নিরলস কঠোর পরিশ্রমের ফলে গ্রামের শত শত শিক্ষার্থী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাচ্ছে প্রত্যেক বছর! 

শিক্ষার্থীদের মাঝে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বপ্নের ফানুস জ্বালিয়েও, নিরলসভাবে পরিশ্রম করে গেলেও একটাকাও নেননা তিনি। 

বরংচে যার বই কেনার টাকা নেই, ওক্কে! বই কিনে দিয়েছেন। 

মেসে থাকা খাওয়ার টাকা নেই, ওক্কে! তার নিজ পকেট থেকে দিয়ে থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন! 

ভর্তি হওয়ার টাকা নেই, ওক্কে! নিজ টাকা দিয়ে ভর্তি করে দিয়েছেন। 

আর নিয়মিত ফ্রি তো পড়ানেই!

শুধু শিক্ষার মাঝেই থেমে নেই এই মানুষটি! শিক্ষায় যেমন হাজার হাজার শিক্ষার্থীর সোনালী সকালের আলোকোজ্জ্বল আলোর বিভা তিনি ঠিক তেমনি দুস্থ দারিদ্র্য অবহেলিত মানুষের পরম আনন্দের উষ্ণতাও তিনি! শুধু করোনা মহামারীই নয়, যে কোনো মানুষের বিপদে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন দেশপ্রেমিক অতন্দ্র সীমান্তের প্রহরীর মতো!

এই মানুষটিকে সৃষ্টিকর্তা সুসম্মান ও সুস্বাস্থ্যের দীর্ঘায়ু করুন! শুধু তাই নয় তার শিক্ষকতা পেশা সম্মানের সমৃদ্ধিতে ভরে যাক!

প্রণাম স্যার! কোটি কোটি প্রণাম! দোয়া করবেন আপনার আদর্শের যেন মান রাখতে পারি!

গোপাল রায়

শিক্ষার্থী,  রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় 

Small Banner