1. প্রচ্ছদ
  2. জাতীয়
  3. সারাবাংলা
  4. রাজনীতি
  5. রাজধানী
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আদালত
  8. খেলা
  9. বিনোদন
  10. লাইফস্টাইল
  11. শিক্ষা
  12. স্বাস্থ্য
  13. তথ্য-প্রযুক্তি
  14. চাকরির খবর
  15. ভাবনা ও বিশ্লেষণ
  16. সাহিত্য
  17. মিডিয়া
  18. বিশেষ প্রতিবেদন
  19. ফটো গ্যালারি
  20. ভিডিও গ্যালারি

একাডেমিকে বাস উপহার দিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত ব্যারিস্টার সুমনের

ক্রীড়া ডেস্ক প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৯, ২০২২, ০৬:২৫ পিএম একাডেমিকে বাস উপহার দিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত ব্যারিস্টার সুমনের

ঢাকাঃ সামাজিক বিভিন্ন সমস্যা নিরসনে আওয়াজ উঠিয়ে ও ফুটবল প্রেমের কারণে বেশ জনপ্রিয় ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। সামাজিক মাধ্যম ও লোকমুখে ব্যারিস্টার সুমন নামেই অধিক পরিচিত তিনি। ফুটবলের প্রতি তার নিবেদনের কথা সবারই জানা। আন্তর্জাতিক ফুটবলে বাংলাদেশের সাফল্যে যেমন আনন্দিত হন তেমনি ব্যর্থতায় হন ব্যথিত। দেশের ফুটবলে নয়া জাগরণ তৈরি করা তার ক্লাব ব্যারিস্টার সুমন ফুটবল একডেমি এরমধ্যেই আলোচনায় এসেছে বহুবার। দেশের বিভিন্ন জেলায় প্রায়ই তার এই একাডেমির ফুটবলারদের নিয়ে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ খেলে থাকেন সুমন। ভারতেও খেলে এসেছেন ম্যাচ। এবার নিজ একাডেমির জন্য অনন্য এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন সুমন।

শুরু থেকেই নিজ একাডেমির ফুটবলারদের সার্বিক উন্নয়নের ব্যাপারে বেশ সচেতন ব্যারিস্টার সুমন। দলের ফুটবলারদের অনুপ্রাণিত করতে প্রায়ই নানা উদ্যোগ হাতে নেন তিনি। এরই ধারাবাহিকতায় একাডেমির জন্য নিজ উদ্যোগে বাস কিনলেন ব্যারিস্টার সুমন। এই ঘটনার মধ্য দিয়েই বাংলাদেশের ফুটবল ইতিহাসে বসুন্ধরা কিংসের পর কোন ক্লাব নিজস্ব বাস পেল। আজ চাঁপাইনবাবগঞ্জে রহনপুর ফুটবল একাডেমির বিপক্ষে এই বাসে চেপেই খেলতে গিয়েছে তার দল।

ফুটবলের গণজাগরনের জন্য কাজ করে যাওয়া ব্যারিস্টার সুমন জানান, ‘আমি আমার এই জীবনকালে ফেসবুক ও পারিবারিকভাবে সাহায্য নিয়ে যত টাকা ইনকাম করেছিলাম, তার সব টাকাকে এক জায়গায় করে এই বাসটা আমার একাডেমির নামে করে দিচ্ছি। আজ চাঁপাইনবাবগঞ্জে খেলতে এসেই এর যাত্রা শুরু হল’।

আজ চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর আহম্মদী বেগম (এ.বি) সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্থানীয় রহনপুর ফুটবল একাডেমির বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ খেলতে এসে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন খেলা শুরুর আগে এসব কথা বলেন। নিজস্ব অর্থায়নে কেনা এই বাস সারাজীবনের জন্য একাডেমির কাজে ব্যবহার হবে বলে জানান সুমন। এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘যদি আমি বেঁচে না থাকি, তবে আমার পরিবারের কারো কোনো দায় এই গাড়ির উপর থাকবে না। আমার টাকা দিয়ে কেনা এই গাড়ি পুরোটাই একাডেমির মালিকানায় থাকবে এবং সারাজীবন একাডেমির কাজে ব্যবহার হবে’।

নিজস্ব অর্থায়নে কেনা বাসটিকে দারুণভাবে সাজিয়েছেন সুমন। যেখানে রেখেছেন অনুপ্রেরনামূলক নানা তথ্য। মাদকের বিরুদ্ধে বরাবরের মতো সোচ্চার সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবি বাসেও রেখেছেন এর ছাপ। ‘Say No To Drugs But Football’-এই স্লোগানকে ফুটিয়ে তুলেছেন গাড়িটিতে। তাছাড়াও বাংলাদেশ ফুটবলে নানা দুর্নীতি-অনিয়মের ব্যাপারে সোচ্চার এই আইনজীবি গাড়িটিতে লিখেছেন ‘Say No To Corruption But Football’ নামক স্লোগান।

বাসটি পেয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত একাডেমির ফুটবলাররা। দলের ফুটবলার হাবিব জানান, ‘আসলে এমন গাড়ি দেখা যায় ইউরোপের বড় বড় ক্লাবে, আর বাংলাদেশের মধ্যে দেখা যায় বসুন্ধরা কিংসে। আসলে ভাবতে পারিনি যে আমাদের মতো ছোট একটা ক্লাবে আমরা এতো বড় একটা জিনিস পাব। অসংখ্য ধন্যবাদ সুমন ভাইকে এতো বড় একটা কাজ আমাদের জন্য করেছেন তিনি’।

দলের আরেক গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার মধু নিজের অনুভূতি জানাতে গিয়ে বলেন, ‘আমি সর্বপ্রথম যখন বসুন্ধরা ক্লাবে খেলি তখন এমন বাস দেখেছিলাম। স্বপ্নেও ভাবতে পারিনি যে কোনোদিন এমন বাসে চড়তে পারব। সুমন ভাইয়ের জন্য আজ সেই স্বপ্ন সত্যি হল’।

এর আগেও ব্যারিস্টার সুমন নিজ একাডেমির জন্য নানা ধরণের উন্নয়নমূলক কাজ করে আলোচনায় এসেছেন। ভবিষ্যতেও তার এই কাজ অব্যাহত থাকবে বলে জানান সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবি। তিনি বলেন, ‘আমার জীবনের যা ইনকাম আছে, তার সর্বস্ব দিয়ে আমি আমার এলাকার মানুষের জন্য কাজ করে যেতে চাই। সুপ্রিম কোর্টের অ্যাডভোকেট হিসেবে দুর্নীতি-অনিয়মের প্রতিবাদ করতে চাই। ফুটবলের গণজাগরন আবার ফিরিয়ে আনতে চাই। এই তিনটি কাজ করেই জীবনটা শেষ করে দিতে চাই’।

এসএস

Small Banner