1. প্রচ্ছদ
  2. জাতীয়
  3. সারাবাংলা
  4. রাজনীতি
  5. রাজধানী
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আদালত
  8. খেলা
  9. বিনোদন
  10. লাইফস্টাইল
  11. শিক্ষা
  12. স্বাস্থ্য
  13. তথ্য-প্রযুক্তি
  14. চাকরির খবর
  15. ভাবনা ও বিশ্লেষণ
  16. সাহিত্য
  17. মিডিয়া
  18. বিশেষ প্রতিবেদন
  19. ফটো গ্যালারি
  20. ভিডিও গ্যালারি

বিজয়া দশমী আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রকাশিত: অক্টোবর ৫, ২০২২, ০৯:১২ এএম বিজয়া দশমী আজ

ঢাকাঃ শারদীয় দুর্গাপূজায় আজ বিজয়া দশমী। অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে শুভ ও কল্যাণ এবং সব সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে নিরন্তর শান্তি ও সম্প্রীতির আকাঙ্ক্ষা নিয়ে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে আজ বুধবার (৫ অক্টোবর) শেষ হচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। 

গত শনিবার ষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে পাঁচ দিনব্যাপী যে পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়, তা আজ প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে। এর ফলে দুর্গোৎসবের শেষ দিনে বিদায়ের সুর বেজে উঠেছে প্রতিটি মণ্ডপে মণ্ডপে।

বিজয়া দশমীতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে অন্যরকম আবেগ ও মন খারাপ করা এক অনুভূতির সৃষ্টি হয়। কারণ, দশমী মানেই দুর্গা মায়ের ফিরে যাওয়া। অপেক্ষায় থাকতে হবে আরও একটি বছর।

জানা গেছে, বিসর্জনের দিনে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে সকাল ৯টা ৫৭ মিনিটের মধ্যে দশমীর বিহিত পূজা এবং পূজা শেষে দর্পণ বিসর্জন। দুপুর ১২টায় রয়েছে স্বেচ্ছায় রক্তদান। বিকেল ৪টায় রয়েছে বিজয়া শোভাযাত্রা। 

ঢাকেশ্বরী মন্দিরের প্রধান পুরোহিত রঞ্জিত চক্রবর্তী বলেন, বিজয়া দশমীতে মা দুর্গা সব অশুভ শক্তি বিনাশ করে শুভ শক্তির সঞ্চার করেন। আমরা মায়ের আশীর্বাদ নিয়ে এই পৃথিবীতে যেন সুন্দরভাবে প্রকৃত মানুষ হিসেবে বাস করতে পারি, সেজন্য মায়ের কাছে আকুল আবেদন করছি। সকালে দর্পণ বিসর্জনের মাধ্যমে মাতৃপূজা শেষ হবে। 

সনাতনী শাস্ত্র অনুযায়ী জানা যায়, এবার দেবীদুর্গা জগতের মঙ্গল কামনায় গজে (হাতি) চড়ে মর্ত্যলোকে (পৃথিবী) এসেছেন। এতে প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঝড় বৃষ্টি হবে এবং শস্য ও ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। অন্যদিকে স্বর্গে বিদায় নেবেন নৌকায় চড়ে। যার ফলে জগতের কল্যাণ সাধিত হবে।

গতকাল বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় মহানবমী পূজা উদযাপন করে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। তবে বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের কারণে রাজধানীর পূজা মণ্ডপগুলোতে গতকাল ভক্ত-দর্শনার্থীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। এই ভোগান্তির মধ্যেও মণ্ডপে মণ্ডপে ভক্তরা অঞ্জলি ও ভোগ দেন। অনেকেই পরিবার-প্রিয়জন নিয়ে আসেন দেবীকে শেষবারের মতো দেখতে। মন্ত্র আর উলুধ্বনিতে মুখর ছিল মণ্ডপগুলো।

রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে ছিল ভক্তদের উপচেপড়া ভিড়। দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষা ছিল শুধু দেবী দর্শনের জন্য। দেবীর কাছে নানা প্রার্থনা করেন ভক্তরা। ঢাকঢোলে আর নৃত্যে মেতে ওঠে মণ্ডপ। এ ছাড়া প্রতিটি পূজামণ্ডপেই বিতরণ করা হয় প্রসাদ।

বিশ্বব্যাপী শান্তি, সম্প্রীতি আর ভ্রাতৃত্ববোধে জেগে উঠুক- এই প্রার্থনা জানান ভক্তরা। আর নবমী পূজা ও সন্ধ্যা আরতি শেষে বাজতে শুরু করে বিদায়ের সুর।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, এবার সারাদেশে ৩২ হাজার ১৬৮টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব উদযাপন করছেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। এসব মণ্ডপে শারদীয় উৎসব নির্বিঘ্নে উদযাপন করার জন্য প্রশাসনের পাশাপাশি প্রতিটি পূজা উদযাপন কমিটিও নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে। মণ্ডপে মণ্ডপে লাগানো হয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা।

অন্যদিকে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সূত্রে জানা যায়, এ বছরের শারদীয় দুর্গোৎসব শান্তিপূর্ণভাবে যেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা উদযাপন করতে পারেন সেজন্য কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের মণ্ডপে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য র‍্যাব ও পুলিশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকছে। এছাড়া প্রতিটি মণ্ডপে পূজার চলাকালীন আনসার সদস্য মোতায়েন রয়েছেন নিরাপত্তার কাজে।

বিজয়া দশমী উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটি। বেতার ও টেলিভিশনে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা প্রচার করা হবে। সংবাদপত্রগুলো বিশেষ নিবন্ধ ও ক্রোড়পত্র প্রকাশ করবে।

এমবুইউ

Small Banner