1. প্রচ্ছদ
  2. জাতীয়
  3. সারাবাংলা
  4. রাজনীতি
  5. রাজধানী
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আদালত
  8. খেলা
  9. বিনোদন
  10. লাইফস্টাইল
  11. শিক্ষা
  12. স্বাস্থ্য
  13. তথ্য-প্রযুক্তি
  14. চাকরির খবর
  15. ভাবনা ও বিশ্লেষণ
  16. সাহিত্য
  17. মিডিয়া
  18. বিশেষ প্রতিবেদন
  19. ফটো গ্যালারি
  20. ভিডিও গ্যালারি

ছাত্রীকে নিয়ে প্রধান শিক্ষক উধাও

জেলা প্রতিনিধি, নাটোর প্রকাশিত: অক্টোবর ২, ২০২২, ১১:৪৫ এএম ছাত্রীকে নিয়ে প্রধান শিক্ষক উধাও
প্রধান শিক্ষক ফিরোজ আহমেদ

নাটোরঃ গুরুদাসপুরে প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক স্কুলছাত্রীকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় গতকাল শনিবার (১ অক্টোবর) রাত ১১টার দিকে ওই ছাত্রীর মা নাদিরা বেগম বাদী হয়ে গুরুদাসপুর থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন। 

এর আগে, এদিন দুপুরে উপজেলার নাজিরপুর মরিয়ম মেমোরিয়াল বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফিরোজ আহম্মেদ ওই বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থীকে নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক ফিরোজ আহমেদ (৪৮) নাজিরপুর গ্রামের মৃত গোলাম মোস্তফার ছেলে।

জানা যায়, ওই শিক্ষার্থী শনিবার সকাল ১০টার দিকে ব্যবহারিক পরীক্ষা দেওয়ার জন্য বিদ্যালয়ে যায়। দুপুর ২টার দিকে মেয়ে বাড়ি না ফেরায় বিদ্যালয়ে খোঁজ নিতে যান বাবা। সেখানে গিয়ে জানতে পারেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফিরোজ আহম্মেদ তার মেয়েকে নিয়ে একটি মাইক্রোবাসে ওঠে চলে গেছে।

পরে তিনি জানতে পারেন মেয়ে ও প্রধান শিক্ষক রাজশাহীতে অবস্থান করছে। পরে প্রধান শিক্ষকের স্বজনদের সঙ্গে নিয়ে রাজশাহীর ভদ্রা এলাকার একটি বাসায় তাদের সন্ধান পান। এ সময় মেয়েকে নিয়ে আসার চেষ্টা করলে প্রধান শিক্ষক বাধা দেন। পরে তারা থানা পুলিশের কাছে গেলে ওই সুযোগে প্রধান শিক্ষক তার মেয়েকে নিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে যান। তিনি রাজশাহীতে মেয়েকে খুঁজছেন। তবে এখনো সন্ধান পাননি।

ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রাতে গুরুদাসপুর থানায় শিক্ষার্থীর মা বাদী হয়ে প্রধান শিক্ষক ফিরোজ আহম্মেদসহ তার তিন ভাইয়ের বিরুদ্ধে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষার্থীকে উদ্ধার ও অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক ও তার ভাইদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

এ বিষয়ে গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল মতিন জানান, এ বিষয়ে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে একটি অপহরণ মামলা করেছেন। আমরা চেষ্টা করছি, তাদের খুব শিগগিরই খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনতে।

এমবুইউ

Small Banner