Agaminews
Dr. Neem Hakim
Dr. Neem Hakim

বিশ্বকে উপেক্ষা করে হংকংয়ের জাতীয় নিরাপত্তা আইন পাস


আগামী নিউজ | আন্তর্জাতিক ডেস্ক প্রকাশিত: জুন ৩০, ২০২০, ০১:২৮ পিএম
বিশ্বকে উপেক্ষা করে হংকংয়ের জাতীয় নিরাপত্তা আইন পাস

ঢাকা : চীনের শীর্ষ আইন প্রণয়নকারী সংস্থা মঙ্গলবার হংকংয়ের জাতীয় সুরক্ষা আইনটি পাস করেছে। এতে হংকংয়ের ওপর আরও নিয়ন্ত্রণ আরোপ করতে পারবে চীন এবং অঞ্চলটির স্বাধীনতার বিষয়টিও অনিশ্চয়তায় পড়ে গেল। চীনের এই আইনে এমন পরিবর্তন আনা হয়েছে যা ২৩ বছর আগে সাবেক ব্রিটিশ উপনিবেশের জীবন যাত্রাকে ফিরিয়ে আনার প্রতিচ্ছবি।

যুক্তরাজ্যের কাছ থেকে ১৯৯৭ সালে হংকংয়ের মালিকানা পেয়েছিল চীন। কিন্তু একটি অনন্য চুক্তির মাধ্যমে হংকং কিছু ক্ষেত্রে স্বাধীনতা বা স্বায়ত্তশাসনের অধিকার ভোগ করে থাকে।

বিশ্বের আর্থিক এই কেন্দ্রটির ক্ষেত্রে এই আইনটি তাদের অধিকার ও স্বাধীনতাকে খর্ব করবে বলে আশঙ্কা রয়েছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী এ আইনের অধীনে অপরাধীকে সবচেয়ে কঠিন জরিমানা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হবে। 

এ নিয়ে বিশিষ্ট গণতন্ত্রপন্থী কর্মী জোশুয়া ওয়াং বলেছেন, তিনি তার ডেমোসিস্টো গোষ্ঠীটি ত্যাগ করবেন। এটি হংকংয়ের সমাপ্তি চিহ্নিত করে যা বিশ্ব আগে জানত বলে ওয়াং টুইটারে বলেছেন।

গত মাসে খসড়াটি আলোচনার জন্য স্থায়ী কমিটিতে প্রেরণ করে আইনটির অনুমোদন দিয়েছিল চীনা পার্লামেন্ট।
এর আগে হংকংয়ের নেতা কেরি ল্যাম বলেছিলেন যে ‘জাতীয় সুরক্ষা আইন সম্পর্কিত কোনও প্রশ্ন সম্পর্কে মন্তব্য করা আমার পক্ষে উপযুক্ত নয়।

নিরাপত্তা আইনটি পাস করার কথা চীন গত মাসেই ঘোষণা দিয়েছিল। এ আইনটি বিচ্ছিন্নতাবাদি, বিদ্রোহী, সন্ত্রাসবাদ এবং বিদেশি শক্তির সঙ্গে ষড়যন্ত্র দমনে সাহায্য করবে।

গত বছর চীনের একটি বিতর্কিত প্রত্যর্পণ আইন নিয়ে হংকংয়ে বিক্ষুব্ধ গণতন্ত্রকামীদের তীব্র আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে নতুন সুরক্ষা আইনটি পাস করল চীন।

সংশ্লিষ্ট বিশ্লেষকরা আইনটি নিয়ে সতর্কবার্তা দিয়ে বলছেন, এর ফলে হংকংয়ের বিচারিক স্বাধীনতা এবং শহরটির স্বতন্ত্র স্বত্তা ধ্বংস হয়ে যাবে।  

গত মাসে বেইজিং যখন নতুন নিরাপত্তা আইন পাস করানো নিয়ে ঘোষণা দিয়েছিল, তখন থেকেই হংকংয়ের এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদে রাস্তায় নামে গণতন্ত্রকামীরা। এর পাশাপাশি আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও বিলটি নিয়ে নিন্দার ঝড় ওঠে।
 

Dr. Neem